লিবিয়ায় বিমান হামলা

শাহজালালের লাশ আনতে সহায়তা চান স্বজনরা

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

মাদারীপুর প্রতিনিধি

লিবিয়ার অভিবাসী ক্যাম্পে বিমান হামলায় নিহত শাহজালালের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরে চলছে শোকের মাতম। দ্রুত নিহতের লাশ ফিরে পেতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন এই নিহতের স্বজনরা। দালাল চক্রের যে সদস্যরা শাহজালালকে লিবিয়ায় নিয়ে গেছে তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

স্বজনরা জানান, দালালদের খপ্পড়ে পড়ে একবছর আগে অবৈধভাবে সমুদ্রপথে ইতালি যাওয়ার সময় লিবিয়ার অভিবাসী ক্যাম্পে শাহজালালসহ অনেকেই আটকা পড়েন। গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ৭টার দিকে ওই অভিবাসী ক্যাম্পে বিমান হামলা চালানো হয়। এতে নিহত হন মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ খাগছাড়া গ্রামের ফজেল কাজীর ছেলে শাহজালালসহ অন্তত ৪০ জন। শাহজালালের মৃত্যুর খবর পরিবারের কাছে আসার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন স্বজনরা। দ্রুত নিহতের লাশ ফিরে পেতে সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।

শাহজালালের বাবা ফজলে কাজী ও স্থানীয়রা জানান, সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া এলাকার দালাল নাসির ও রুবেল প্রলোভন দিয়ে ইতালি নেওয়ার কথা বলে প্রথমে লিবিয়ার বন্দিশালায় আটকে রাখে। পরে শারীরিক নির্যাতনের ভিডিও পরিবারের কাছ পাঠিয়ে আদায় করে সাড়ে ১০ লাখ টাকা। জমিজমা বিক্রি করে ও চড়া সুদে ব্যাংক ঋণ নিয়ে দালালদের কাছে দিতে হয় মুক্তিপণের টাকা। এতে নিঃস্ব শাহজালালের পরিবার।

এদিকে এ ঘটনার পরেই গা-ঢাকা দেয় দালাল নাসির ও রুবেল। দালালদের ব্যাপারে প্রশাসনের নীরব ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে জড়িতদের কঠোর শাস্তি দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। এর আগে এই দালালদের খপ্পড়ে পড়ে তিউনিসিয়ায় ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে প্রাণে বেঁচে ফিরেন মাদারীপুরের ৮ তরুণ। এসব ঘটনায় আদালত ও থানায় একাধিক মামলা হলেও মূল অভিযুক্তরা রয়ে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, এরই মধ্যে এই দালালদের চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের ধরতে ও নির্মূল করতে গোয়েন্দা পুলিশের পাশাপাশি থানা পুলিশও কাজ করছে।

 

"