জৌলুস হারাচ্ছে মুসা খানের সমাধি ও মসজিদ

প্রকাশ | ১৫ জুন ২০১৯, ০০:০০

ঢাবি প্রতিনিধি

রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হলের পশ্চিম পাশে দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগ প্রাঙ্গণে অবস্থিত মুসা খানের সমাধি ও মসজিদ দিন দিন জৌলুস হারাচ্ছে।

সাদামাটা সমাধিটি দেখে বোঝার উপায় নেই এখানেই চিরনিদ্রায় শায়িত মসনদ-ই-আলা ঈশা খানের ছেলে মুসা খান। বাবার মৃত্যুর পর মুসা খান ১৫৯৯ খ্রিস্টাব্দে সোনারগাঁয়ের মসনদের অধিকারী হন। তিনিও বাবার মতো মোগল সাম্রাজ্যবিরোধী নীতি অবলম্বন করেন এবং অন্য ভূঁইয়াদের সঙ্গে নিয়ে মোগলদের সঙ্গে যুদ্ধও করেন। ১৬১১ খ্রিস্টাব্দে সোনারগাঁয়ের পতন হলে তাকে আত্মসমর্পণ করতে হয়। ১৬২৩ খ্রিস্টাব্দে তিনি ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। সমাধির পাশেই রয়েছে মুসা খান মসজিদ। বাংলাপিডিয়ার তথ্য অনুযায়ী, মসজিদটি আনুমানিক ১৬৭৯ খ্রিস্টাব্দে নির্মিত। মোগল স্থাপত্যরীতিতে তৈরি মসজিদটি তিন গম্বুজের। মসজিদের মূল ভিতটি ৩ দশমিক ৫ মিটার উঁচু। ভেতের পূর্বদিকটা উন্মুক্ত। মসজিদের মূল ভিতটি ৩ দশমিক ৫ মিটার উঁচু। ভেতের পূর্বদিকটা উন্মুক্ত। পূর্বদিকের তিনটি খিলান দরজাপথ রয়েছে। মাঝখানেরটি কিছু বড়। পূর্বদিকের তিনটি খিলান দরজাপথ রয়েছে। মাঝখানেরটি কিছু বড়। মসজিদের ভেতরে তিনটি ‘বে’ রয়েছে। মসজিদের উত্তর-পূর্ব দিকে মুসা খানের সমাধি।

 

"