ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক

উড়ালসড়ক খুলছে আজ

প্রকাশ : ২৫ মে ২০১৯, ০০:০০

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখো যাত্রীদের নিরাপদে ও নির্বিঘেœ ঈদযাত্রার জন্য ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চার লেনের দুটি উড়ালসড়ক, দুটি সেতু, চারটি ওভারপাস আজ শনিবার খুলে দেওয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উড়ালসড়ক ও সেতু আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন।

ফলে এবার ঈদে এ মহাসড়ক দিয়ে নিরাপদে ও নির্বিঘেœ বাড়ি ফেরবেন ঘরমুখো মানুষ। তবে এ মহাসড়কে গাড়ি থামিয়ে বিভিন্ন স্থানে চাঁদাবাজি, যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং, চালকদের এলোমেলো গাড়ি চালানো, নিষিদ্ধ হওয়ার পরও পুলিশকে মাসোহারা দিয়ে অটোরিকশা, সিএনজি অটোরিকশা মহাসড়কে চলাচল করায় নির্বিঘেœ ঈদযাত্রা নিয়ে কিছুটা শঙ্কায় রয়েছেন যাত্রীরা।

পুলিশ জানায়, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিন দেশের উত্তরবঙ্গের ১১৮টি রোডের হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। ঈদে যানবাহনের চাপ আরো বৃদ্ধি পায়। উত্তরবঙ্গের সঙ্গে রাজধানীর যোগাযোগের একমাত্র পথ এ মহাসড়কে একসময় যানজট ছিল নিত্যনৈমিত্তিক। যানজটে আটকে পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানবাহনে বসে থাকতে হতো। ভাঙাচোরা সড়কে এলোমেলো গাড়ি চলাচল ও ধুলায় ধূসর হয়ে উঠত মহাড়সকটি। বিশেষ করে দুটি ঈদের ছুটিতে ঘরমুখো মানুষকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হতো। এ ছাড়া পহেলা বৈশাখ, পূজাসহ বিভিন্ন উৎসব ছুটিতেও দুর্ভোগ কম ছিল না। গাজীপুরের কড্ডা, কোনাবাড়ী ও কালিয়াকৈরের চন্দ্রা ত্রিমোড়ে তো যানজট লেগেই থাকত। এখানকার হাইওয়ে, জেলা ও থানা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশসহ স্থানীয় প্রশাসনের লোকজন এসব এলাকার যানজট নিরসনে হিমশিম খেতেন।

সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের উদ্যোগে এডিবির অর্থায়নে সাউথ এশিয়া রিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন প্রজেক্টের আওতায় ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে এ মহাসড়কের চার লেনের কাজ শুরু হয়। ৫ হাজার ৫৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে গাজীপুর ভোগড়া বাইপাস মোড় থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত ৭০ কিলোমিটার মহাসড়ক চার লেনে উন্নতিকরণ করা হচ্ছে। এ প্রকল্পে ৯টি উড়ালসড়ক, দুটি রেলওয়ে ওভারপাস ব্রিজ, ২৬টি সেতু নির্মাণ, ৭৪টি কালভার্ট সম্প্রসারণ, সাতটি আন্ডারপাস ও ১৩টি পথচারী সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে কালিয়াকৈর উপজেলার গোয়ালবাথান এলাকার এবং টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার দেওড়া এলাকার দুটি রেলওভার ব্রিজ খুলে দেওয়া হয়েছে আগেই।

 

"