সুন্দরগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলায় আহত ৬ গ্রেফতার ১

প্রকাশ | ২৪ মে ২০১৯, ০০:০০

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে মাদক কারবারিদের সশস্ত্র হামলায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ-সার্কেল) আব্দুল আউয়ালসহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ সময় হামলাকারী অন্যরা পালিয়ে গেলেও শামীম ওসমান সর্দার নামে বহুল আলোচিত ১৩ মামলার আসামিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ। গ্রেফতার শামীম ওসমান সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়?া?র্ডের মুক্তি?যোদ্ধা কামাল সর্দা?রের তৃতীয় ছেলে ও পৌরসভার এই ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাজু সর্দারের ছোট ভাই।

জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার ছাপড়হাটী ইউনিয়নের পূর্ব ছাপড়হাটী (মাঠেরহাট) গ্রামের পাকা রাস্তার ওপর এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ দলের উপস্থিতি টের পেয়ে শামীম ওসমান সর্দারসহ তার দল পুলিশ দলের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছাড়াও আরো চারূপুলিশ সদস্য আহত হন। তারা হলেনÑ সুন্দরগঞ্জ থানার এএসআই ওমর ফারুক, কনস্টেবল সাদেকুল ইসলাম, গাইবান্ধা ডিবি পুলিশের এসআই আবু নেওয়াজ ও কনস্টেবল নূরুল ইসলাম। আহত পুলিশ সদস্যরা বর্তমানে গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতাল ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। মাদক কারবারি, মোটরসাইকেল চুরি, দাঙ্গা-হাঙ্গামার ঘটনায় শামীম ওসমান সর্দারের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা আদালতে বিচারাধীন।

সুন্দরগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি, তদন্ত) তাজুল ইসলাম জানান, পুলিশ সদস্যদের ওপর শামীম ওসমান সর্দারের দল সশস্ত্র হামলা চালালে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশের পক্ষ থেকে গুলি ছুড়লে হামলাকারী দলের নেতা মাদক কারবারি শামীম ওসমান সর্দার পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে গ্রেফতার করে রমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সে পুলিশ প্রহরায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ সময় তিনটি রাম দাসহ ২ হাজার ৪০টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আব্দুস সোবাহান জানান, এ ব্যাপারে থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

"