সিংহভাগ মার্কিনির অভিমত

ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ অবশ্যম্ভাবী

প্রকাশ : ২৩ মে ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র ‘আগামী কয়েক বছরের মধ্যে’ ইরানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াবে বলে ধারণা অধিকাংশ মার্কিন নাগরিকের। দেশ দুটির মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে এ বিষয়ে পরিচালিত এক জরিপের মাধ্যমে মার্কিন নাগরিকদের মতামত যাচাই করার চেষ্টা করেছে জরিপ সংস্থা ইপসোস। মঙ্গলবার প্রকাশিত ওই জরিপের ফলে এ খবর জানা গেছে।

১৭ থেকে ২০ মের মধ্যে ১ হাজারেরও বেশি লোককে নিয়ে করা এই জরিপে দেখা গেছে, ইরান যুক্তরাষ্ট্রের জন্য একটি নিরাপত্তা হুমকি এমন ভাবনায় উদ্বিগ্ন মার্কিন নাগরিকের সংখ্যা গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে, তবে ইরানি সামরিক বাহিনীর ওপর আগ বাড়িয়ে হামলার বিষয়ে তাদের অধিকাংশেরই সমর্থন নেই। কিন্তু যদি ইরান মার্কিন সামরিক বাহিনীর ওপর প্রথম আঘাত হানে তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের পুরো অথবা সীমিত সামরিক শক্তি ব্যবহার করে জবাব দেওয়া উচিত বলে মনে করেন প্রতি পাঁচজনের মধ্যে চারজন।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ছয় বিশ্বশক্তি ও ইরানের মধ্যে স্বাক্ষরিত আন্তর্জাতিক পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নেওয়ার পর থেকে ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে উত্তেজনা ফের বাড়তে শুরু করে। চলতি বছরের মেতে ট্রাম্প তার ইরানবিরোধী অবস্থান আরো জোরদার করে ইরানের তেল রফতানির ওপর সব নিষেধাজ্ঞা ফের পুনর্বহাল করার পর উত্তেজনা আরো বৃদ্ধি পায়।

সম্ভবত ইরান যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থে আঘাত হানার পরিকল্পনা করছে, এমন গোয়েন্দা তথ্যের পর পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে বিমানবাহী রণতরী ও পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম বোমারু বিমান মোতায়েনের মাধ্যমে শক্তি বৃদ্ধি করে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এ ধরনের কোনো পরিকল্পনার কথা অস্বীকার করেছে ইরান।

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করছেন জরিপে তার সঙ্গে দ্বিমত প্রকাশ করেছেন প্রায় অর্ধেক, ৪৯ শতাংশ মার্কিন নাগরিক; এদের মধ্যে ৩১ শতাংশ জোরালোভাবে দ্বিমত প্রকাশ করেছেন। অপরদিকে ৩৯ শতাংশ ট্রাম্পের নীতি অনুমোদন করেছেন।

৫১ শতাংশ মার্কিন নাগরিক মনে করেন আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে যুদ্ধ বাধবে। উদার ও রক্ষণশীল, উভয় ধরনের নাগরিকরাই ইরানকে হুমকি হিসেবে দেখেন এবং ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ হবে বলে মনে করেন। ইরানকে ‘গুরুতর’ বা ‘আসন্ন’ হুমকি বলে মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের ৫৩ শতাংশ নাগরিক। অপরদিকে তাদের ৫৮ শতাংশ উত্তর কোরিয়াকে ও ৫১ শতাংশ রাশিয়াকে হুমকি বলে মনে করেন।

উদ্বেগ থাকা সত্ত্বেও ৬০ শতাংশ মার্কিনি মনে করেন, ইরানি সামরিক বাহিনীর ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আগ বাড়িয়ে হামলা চালানো উচিত হবে না। অপরদিকে ১২ শতাংশ আগ বাড়িয়ে হামলা চালানো উচিত বলে মনে করেন। ইরান হামলা চালালে মার্কিন সামরিক বাহিনীর প্রতিশোধমূলক হামলা চালানো উচিত বলে করেন ৭৯ শতাংশ মার্কিনি। এদের মধ্যে ৪০ শতাংশ বিমান হামলার মতো সীমিত পদক্ষেপের পক্ষে মত দিয়েছেন আর ৩৯ শতাংশ পূর্ণ সামরিক অভিযানের পক্ষে কথা বলেছেন।

ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র, উভয়েই একের পর এক মারমুখী বিবৃতি দেওয়া সত্ত্বেও উভয় পক্ষই যুদ্ধ চায় না বলে দাবি করেছে। ট্রাম্প জানিয়েছেন, তিনি ইরানি নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করতে চান। কিন্তু মঙ্গলবার ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি আলোচনার সম্ভাবনা প্রত্যাখ্যান করে ইরানের বিরুদ্ধে ‘অর্থনৈতিক ?যুদ্ধ’ চলছে বলে অভিযোগ করেছেন।

 

"