ঐতিহাসিক ভবন ভাঙার বিরোধিতায় সুলতানা কামাল

প্রকাশ : ১৮ মে ২০১৯, ০০:০০

মহানগর (সিলেট) প্রতিনিধি

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সহসভাপতি সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘আজকে যারা ক্ষমতায় আছেন তার নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দল বলে দাবি করেন। সেই দলের পক্ষ থেকে ঐতিহাসিক ভবন ভেঙে হাসপাতাল নির্মাণের মতো অবিবেচক সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না। আমরা কেউই হাসপাতাল তৈরির বিপক্ষে নই। আমরা হাসপাতাল বা সরকার কারো বিরোধিতা করতে আসিনি। আমরা চাই, ঐতিহ্য রক্ষা করে উপযুক্ত স্থানে হাসপাতাল নির্মাণ করা হোক। ছাত্রবাস ভবন রক্ষার লড়াইটি নিজেদের অস্তিত্ব টিকানোর লড়াই।’

গতকাল শুক্রবার সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সুলেমান হলে বাপার উদ্যোগে আয়োজিত ‘সিলেটের বিপন্ন স্থাপত্য ঐতিহ্য ও আবু সিনা ছাত্রাবাস ভবন : নাগরিক উদ্বেগ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদের। উনার মাধ্যমেই সরকারের কাছে এই ঐতিহ্যবাহী ভবনের গুরুত্ব ও হাসপাতালবান্ধব স্থানে নবনির্মিতি ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল স্থানান্তর করার বিষয়টি পৌঁছে দিতে চেয়েছিলেন সেমিনারের আয়োজকরা। সুলতানা কামাল বলেন, ‘আমরা মনে করি, সরকারের উচিত জনগণের কথায় গুরুত্ব দেওয়া।’

বাপার কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক শরীফ জামিলের সঞ্চালনায় সেমিনারে আরো বক্তব্য দেন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আব্দুল মুবিন, বাংলাদেশ হেরিটেজ সোসাইটির সভাপতি সোহেল আহমদ চৌধুরী, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট সিলেট শাখার সভাপতি স্থপতি সৈয়দা জেরিনা হোসেন, জাসদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাকির আহমদ, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহীদুল ইসলাম, ব্যারিস্টার আরশ আলী, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি সিএম তোফায়েল সামি, সিলেট মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন বাপার সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম ক্বিম ও ধারণাপত্র পাঠ করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কৌশিক সাহা।

 

"