দেশজুড়ে বিএসটিআইয়ের অভিযান

৩২ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ : ১৫ মে ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

লাইসেন্স ও ওজনযন্ত্রের ভেরিফিকেশন ছাড়া এবং পরিমাপে কারচুপির অভিযোগে ৩২টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা করেছে জাতীয় মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই)। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযানে এসব মামলা করা হয়।

বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স ছাড়া দই বিক্রি করায় রাজধানীর তেজতুরী বাজার এলাকার আলী বাবা সুইটস এবং নয়াপল্টনের মুসলিম সুইটস অ্যান্ড বেকারির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ ছাড়া পণ্যের মোড়কে বাংলায় ওজন, মূল্য, উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ এবং পণ্যের পরিচিতি উল্লেখ না করায় পান্থপথের আল এরাবিয়ান কেক অ্যান্ড সুইটস এবং দারুস সালাম এলাকার সমবায় বাজারের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অন্যদিকে সিএম লাইসেন্স ছাড়া পণ্য বিক্রির অভিযোগে খুলনার ফুলতলার তানিম অয়েল মিল, আলহাজ শেখ এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড অয়েল মিল, কৃষ্ণা অয়েল মিল, জননী হলুদ ও অয়েল মিল, শ্যামা মিষ্টান্ন ভা-ার, বলাই মিষ্টান্ন ভা-ার এবং নিউ খাজানা হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স ছাড়া পণ্য বিক্রির অভিযোগে বগুড়ার দুপচাঁচিয়াতে রিপন হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট, এএস লাচ্ছা সেমাই এবং ওজনে কারচুপির অভিযোগে জাহিদ ট্রেডার্সের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এ ছাড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য রাখায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে রাজশাহীর বিসিক এলাকার প্রাণ এগ্রো লিমিটেডকে ৪০ হাজার ও মেসার্স রাতুল বেকারিকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্যদিকে ভেরিফিকেশনহীন ওজনযন্ত্র ব্যবহার করায় সিলেটের বন্দর বাজার এলাকার মনির অ্যান্ড সন্সের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এ ছাড়া চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ ও চকবাজার এলাকায় বিএসটিআইয়ের অভিযানকালে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে ১৪টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা এবং ৪৯ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আর সিএম লাইসেন্স না থাকায় কুমিল্লার বলরামপুরের আজাদ ফুড অ্যান্ড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ, বন্দিশাহী মুড়ির মিল এবং ভেরিফিকেশনহীন ওজনযন্ত্র ব্যবহার করায় টমছম ব্রিজ এলাকার আসান মিয়ার মাংসের দোকানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

 

"