প্রথম কলাম

রোজা ভেঙে যায় যেসব কারণে

প্রকাশ : ১১ মে ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রোজা ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভের অন্যতম। রোজা রাখা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ। রোজা অবস্থায় পানাহার ও দৈহিক সম্পর্ক থেকে দূরে থাকতে হয়। এসব কাজ থেকে দূরে থাকলেও এমন কিছু কাজ রয়েছে, যেগুলোর কারণে রোজা ভেঙে যায়। সেগুলোর সংক্ষিপ্ত আলোচনা দেওয়া হলো। ভুলে খাওয়া, পান করা বা স্ত্রী সহবাস করার পর রোজা ভেঙে গেছে মনে করে, আবার ইচ্ছাকৃতভাবে খাওয়া বা পান করলে রোজা ভেঙে যায়।

কাঁচাচাল, আটার খামির বা একত্রে অনেক লবণ খেলে রোজা ভেঙে যায়। এমন কোনো বস্তু খেলেও রোজা ভেঙে যায়, যা সাধারণত খাওয়া হয় না; যেমন কাঠ, লোহা, কাগজ, পাথর, মাটি, কয়লা ইত্যাদি। বিড়ি, সিগারেট বা হুঁকা সেবন করলে রোজা ভেঙে যায়। কানে বা নাকের ছিদ্রে তরল ওষুধ দিলে রোজা ভেঙে যায়। দাঁত দিয়ে রক্ত বের হলে যদি তা থুতুর চেয়ে পরিমাণে বেশি হয় এবং কণ্ঠনালিতে চলে যায়, তাহলে রোজা ভেঙে যায়।

মুখে পান দিয়ে ঘুমিয়ে গেলে এবং এ অবস্থায় সুবহে সাদিক হয়ে গেলে রোজা ভেঙে যাবে। হস্তমৈথুন করলে রোজা ভেঙে যায়। রোজা স্মরণ থাকা অবস্থায় কুলি কিংবা নাকে পানি দেওয়ার সময় কণ্ঠনালিতে পানি চলে গেলে রোজা ভেঙে যাবে। নাকের রক্ত পেটে চলে গেলে রোজা ভেঙে যাবে। রাত মনে করে সুবহে সাদিকের পর সাহ্রি খেলে রোজা ভেঙে যাবে। ইচ্ছাকৃতভাবে বমি করা বা বমি আসার পর তা গিলে ফেলা। সূর্যাস্ত হয়ে গেছে মনে করে ভুলে দিনে ইফতার করা।

## রমজানবিষয়ক যে কোনো লেখা আপনিও দিতে পারেন। লেখা পাঠাতে মেইল করুন।

"