ফের ম্যাস হিস্টিরিয়া

শার্শায় ২ শিক্ষকসহ ১৮ শিক্ষার্থী হাসপাতালে

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের শার্শায় ছয় দিনের ব্যবধানে আবারও ম্যাস হিস্টিরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে দুজন শিক্ষকসহ কমপক্ষে ২০ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অসুস্থদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে শার্শা উপজেলার পাকশিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস চলাকালীন ম্যাস হিস্ট্রোরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে পড়ে। এর আগে ১০ এপ্রিল একই স্কুলে ম্যাস হিস্ট্রোরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে কমপক্ষে ৩০ স্কুল শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওই ঘটনায় ১১ এপ্রিল স্কুলের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমানের দায়িত্ব অবহেলার কারণে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন ও বিক্ষোভ মিছিলও করে। এ ঘটনায় অভিভাবকদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

স্কুলের শিক্ষক মিজানুর রহমান জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকালে ক্লাসে পাঠদানকালে হঠাৎ শিক্ষার্থীরা একের পর এক অসুস্থ হতে থাকে। এ সময় সহকর্মী, বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও স্থানীয়রা তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে থাকেন। কিন্তু অসুস্থ শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়তে থাকায় তাদের দ্রুত নাভারন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করা হয়। এ রোগে স্কুলের ১৮ জন ছাত্রছাত্রী ও দুই শিক্ষক আক্রান্ত হন।

অসুস্থ শিক্ষক দুজন হলেন মোস্তাফিজুর রহমান বাবু ও হোসেন আলী। শিক্ষার্থীরা হলো রিতু খাতুন অষ্টম শ্রেণি, সিনথিয়া দশম, বৃথি অষ্টম, শাপলা সপ্তম, শ্রাবণ ষষ্ঠ, নয়ন ষষ্ঠ, ইব্রাহিম খলিল ষষ্ঠ, মিথিলা খাতুন ষষ্ঠ, তাহসিন হোসেন সপ্তম, রিয়া খাতুন সপ্তম, রসুল ইসলাম ষষ্ঠ, বিল্লাল হোসেন ষষ্ঠ, রিমা খাতুন সপ্তম, তৃষ্ণা বেগম নবম, রুপা বেগম সপ্তম, প্রীতি নবম শ্রেণিসহ আরো অনেকে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল, শার্শা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ। পরে তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে আক্রান্তদের খোঁজখবর নেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, ম্যাস হিস্ট্রোরিয়ায় আক্রান্তদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অশোক কুমার সাহা জানান, ভয় পাওয়ার কিছু নেই। চিকিৎসা নিলে সবাই সুস্থ হয়ে উঠবে।

 

"