নিউজিল্যান্ডের সেই মসজিদের আদলে ‘মানব-মসজিদ’

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ধবধবে সাদা সবার পরিধেয়। সাদা পায়জামা, পাঞ্জাবি আর টুপি পরিহিত কয়েক হাজার মুসল্লি। তারা মিলে তৈরি করলেন ‘মানব-মসজিদ’। নিউজিল্যান্ডের আল নুর মসজিদের আদলে এমন মানব-মসজিদ বা মসজিদের ডিসপ্লে বানানো হয়েছে পাকিস্তানের জং শহরে। গত শুক্রবার মুসলিম ইনস্টিটিউট নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এই ডিসপ্লের আয়োজন করে। হামলার ঘটনার পর সংহতি ও সহমর্মিতা প্রকাশে দারুণ ভূমিকা রাখায় নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডার্নের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানটি। খবর আলজাজিরার।

মানব-মসজিদ তৈরিতে অংশগ্রহণকারী নুর হাসান বলেন, ‘আমরা এই মডেলটি তৈরির জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছি। আমাদের জন্য এটা খুবই আনন্দদায়ক যে, আমরা সারা দিন ধরে এভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে প্রস্তুত ছিলাম।’ মানব-মসজিদের ভিডিওতে দেখা গেছে, মুসল্লিরা পাঞ্জাবি, পায়জামা ও টুপি পরে সবুজাভ মাঠে সমবেত হন। মাঠটিতে তারা চমৎকারভাবে ‘আল নুর মসজিদ’র ডিসপ্লে তৈরি করেন। পাশেই আরেকটি ডিসপ্লেতে ‘ইসলাম ইজ পিস’ বা ‘ইসলাম হলো শান্তি’ এই কথাটি ফুটিয়ে তোলা হয়। মাঠের পাশে নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের বিশাল পতাকা স্থাপনের মাধ্যমে ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করা হয়। মর্মন্তুদ ওই হামলায় নিহতদের মধ্যে ৯ পাকিস্তানি নাগরিক ছিলেন। নাঈম রশিদ নামের এক মুসল্লি বন্দুকধারী শ্বেতাঙ্গকে প্রতিরোধের চেষ্টা করে মারা যাওয়ায় তাকে মরনোত্তর সাহসিকতা পুরস্কার দেওয়া হয়। গত শুক্রবার জুমার সময় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে এক অস্ট্রেলীয় খ্রিস্টান-শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী বর্বরোচিত হামলা চালায়। এতে ৫০ জন মুসল্লি প্রাণ হারান। হামলায় আক্রান্ত দুটি মসজিদের একটি ছিল আল নুর মসজিদ।

মুসলমানদের প্রতি সহানুভূতিশীল ও দয়াদ্র দৃষ্টিভঙ্গির কারণে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা বিশ্বব্যাপী প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এমনকি বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন দুবাইয়ের বুর্জ খলিফার বাইরের দেয়ালে তার হিজাব পরিহিত একটি ছবি প্রদর্শিত হয়েছে এবং তাকে তার অবস্থান ও আচরণের জন্য ধন্যবাদ জানানো হয়েছে।

"