বাংলাদেশ ভ্রমণে মার্কিন নাগরিকের জন্য সতর্কতা

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

বাংলাদেশে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিকদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশে ভ্রমণরতদের বাড়তি নিরাপত্তা গ্রহণ করা ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে প্রেসিডিন্ট ডোনাল্ড ট্রামের প্রশাসন। গত বৃহস্পতিবার এই সতর্কবার্তা মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রচার করা হয়। এতে একইসঙ্গে ঢাকা ও দেশের দক্ষিণ পূর্বঞ্চলীয় এলাকা ভ্রমণের বিষয় পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানানো হয়েছে মার্কিন নাগরিকদের প্রতি। এক থেকে পাঁচ সতর্কমাত্রার মধ্যে বাংলাদেশের ব্যাপারে এক থেকে লেভেল দুইয়ে উন্নীত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। আর ঢাকা ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এর মাত্রা ৩। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর জানায়, বাংলাদেশে অপরাধ ও সন্ত্রাস বেড়ে যাওয়ায় এই সতর্কতা জারি করা হয়েছে। কিছু জায়গায় ঝুঁকি অনেক বেড়ে গেছে। ‘রিকন্সিডার ট্রাভেল টু : ঢাকা’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বিস্তারিত উল্লেক করা হয়েছে বলে জানানো হয়। পররাষ্ট্র দফতর জানায়, চট্টগ্রাম হিলট্র্যাকসহ দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় সন্ত্রাস, অপহরণ বেড়ে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ঢাকায় লেভেল থ্রি মাত্রার সতর্কতা জারির বিষয়ে পররাষ্ট্র দফতর জানায়, রাজধানীতে অপরাধের হারও অনেক বেশি। বিশেষ করে রাতে এটি বেশি বৃদ্ধি পায়। শহরের অপরাধগুলোর মধ্যে বিভিন্ন চক্র জড়িত। অপরাধগুলোর মধ্যে চুরি, ডাকাতি, গাড়ি ছিনতাই, হামলা, ধর্ষণ অন্যতম। একইসঙ্গে খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, বান্দরবনের মতো পাহাড়ি এলাকাও বিপজ্জনক। সেখানে অপহরণসহ অন্যান্য অপরাধের ঘটনা ঘটছে।

ট্রাভেল অ্যাডভাইজরিতে বলা হয়, রাজনৈতিক আন্দোলন, অবরোধ ও সহিংস সংঘাত ঘটেছে। চট্টগ্রাম হিলট্র্যাকে যেতে হলে মার্কিন নাগরিকদের বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়ে যেতে হবে।

পররাষ্ট্র দফতর জানায়, সহিংস অপরাধ, ডাকাতি, হামলা, ধর্ষণ অনেক বেড়ে গেছে। সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো বাংলাদেশে হামলার পরিকল্পনা করছে। বলা হয়, তারা যে কোনো সময় পর্যটনপ্রিয় স্থান, বাস-ট্রেন স্টেশন, শপিংমল, রেস্টুরেন্ট, উপাসনালয় কিংবা সরকারি দফতরে হামলা চালাতে পারে। ট্রাভেল অ্যাডভাইজরিতে বলা হয়, শহুরে এলাকায় অনেক পুলিশ থাকা সত্ত্বেও সন্ত্রাসী হামলার সম্ভাবনা আছে।

 

"