আমলাতান্ত্রিক জটিলতাই উন্নয়নের বাধা

খোকন

প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, দুই সিটি করপোরেশন ভাগ হয়েছে ৯ বছর হলো। এখনো জনবল কাঠামো তৈরি হয়নি। আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে আমাদের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব এই আমলাতান্ত্রিক জটিলতা দূর করে সেবার পথ খুলে দেয়া হোক। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত। তাই জনগণের কাছে দায়বদ্ধ এবং ঋণী। গতকাল সোমবার ডিএসসিসির ব্যাংক ফ্লোর সেমিনার কক্ষে নবগঠিত ১৮টি ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সঙ্গে উন্নয়ন কার্যক্রম বিষয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সাঈদ খোকন বলেন, আমরা ৪০ শতাংশ জনবল নিয়ে কাজ করছি। দীর্ঘ চার বছরেও আমরা জনবল সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারিনি। জনবল কঠামো অনুমোদন না হওয়া অনুতাপের বিষয়। অনেক বছর ধরে আমারা কম জনবল নিয়েই কাজ করে আসছি। আমাদের পাশাপাশি উত্তর সিটি ও রাজউকের অবস্থাও একই। এসব সমস্যা সমাধানে একটি শক্তিশালী কর্তৃপক্ষ দিয়ে আমরা সেবা নিশ্চিত করতে পারি।

তিনি বলেন, ঢাকায় ১৯৭৫-৮০ সালের দিকে জনসংখ্যা ছিল ১৮/২০ লাখ। বর্তমানে জনসংখ্যা আড়াই কোটির বেশি। কিন্তু সে তুলনায় সেবা সংস্থাগুলোর সক্ষমতা বাড়েনি। সেবা সংস্থাগুলো জনবল সংকটে ভুগছে। এর মধ্যেও ঢাকা সিটি বিভক্ত হওয়ায় কিছুটা সুফল মিলেছে। কিন্তু রাজউক জনবল সংকটের কারণে নগরীর হাজার হাজার অবৈধ ভবনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না। অন্য সেবা সংস্থাগুলোও জনবল সংকটে চাহিদামতো কাজ করতে পারছে না। এজন্য রাজউক, ওয়াসা, তিতাস গ্যাসসহ সব সেবা সংস্থা বিভাজন করা বা সংক্ষমতা বাড়ানো প্রয়োজন। এতে সেবার মানও বাড়বে।

মেয়র বলেন, সংযুক্ত ওয়ার্ডগুলো আধুনিক শহরে রূপান্তর করতে কিছুটা সময় লাগবে। এটা আমাদের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা। সংযুক্ত ওয়ার্ডগুলো নতুন প্রজন্মের জন্য মর্ডান সিটি হিসেবে দেখতে চাই।

রাজউকের পুরান ঢাকার রি-ডেভলপমেন্ট প্রকল্পের বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, গণপূর্ত মন্ত্রণালয়কে আগে পুরান ঢাকার মানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে। এজন্য সবার সঙ্গে মতবিনিময় করা যেতে পারে। আস্থা না নিয়ে কাজ করলে যেকোনো সমস্যা হতে পারে।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিম, সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, সচিব মোস্তফা কামাল মজুমদার প্রমুখ।

"