ট্রেন থামে, টিকিট বিক্রি হয় না : এ কেমন রেলস্টেশন!

প্রকাশ : ২৩ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

রাকিবুল রাকিব, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)

লোকবল সংকটে ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার বিসকা রেলওয়ে স্টেশনের কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। প্রতিদিন এই স্টেশন হয়ে আন্তনগর, মেইল, কমিউটার ও লোকাল ট্রেনসহ ৩২টি ট্রেন চলাচল করলেও এখানে বিক্রি হয় না ট্রেনের টিকিট। স্টেশন চালু করার জন্য এলাকাবাসী মানববন্ধন ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন। কিন্তু এই স্টেশন চালুর বিষয়ে এখনো বাংলাদেশ রেল কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, এক সময়ের জমজমাট এই স্টেশন থেকে এখন ন্যূনতম যাত্রীসেবা পাওয়া যায় না। ট্রেন চলাচলে নেই কোনো সংকেত ব্যবস্থা। জানা যায় না, ট্রেন আসা-যাওয়ার খবর। কোথাও যেতে আগে থেকে স্টেশনে এসে অপেক্ষা করতে হয়। বিশ্রামগার বন্ধ থাকায় বসতে হয় আশপাশের দোকানে। বিনা টিকিটে ট্রেনে চড়ে কয়েকগুণ জরিমানা দিতে হয় যাত্রীদের। পাশাপাশি মালামাল বুকিং করতেও দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তাই এখানকার যাত্রীদের কাছে বিষাদের অপর নাম হচ্ছে বিসকা স্টেশন।

গৌরীপুর রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ময়মনসিংহ-ভৈরব রেলওয়ে সড়কের গৌরীপুর ও শম্ভুগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যবর্তী স্টেশনটির নামে বিসকা। লোকবল সংকটে ১০ বছর ধরে বন্ধ রয়েছে এ স্টেশনটির কার্যক্রম। প্রতিদিন শত শত যাত্রী এই স্টেশন হয়ে ময়মনসিংহ, গৌরীপুর, কিশোরগঞ্জ, ভৈরব, শ্যামগঞ্জ, পূর্বধলা, জারিয়া, নেত্রকোনা, মোহনগঞ্জসহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করেন। দিনে ৩২টি ট্রেন চলাচল করলেও লোকাল ট্রেন ছাড়া অন্য কোনো ট্রেন এই স্টেশনে যাত্রাবিরতি করে না। দাফতরিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় এই স্টেশন থেকে বিক্রি হয় না কোনো ট্রেনের টিকিট। যাত্রীরা বিনা টিকিটে ট্রেন ভ্রমণ করায় প্রতি বছর সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

বিসকা গ্রামের বাসিন্দা আবদুর রশিদ প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, বিসকা স্টেশনে টিকিট বিক্রি হয় না। তাই ট্রেনযাত্রীরা জারিয়া থেকে ছেড়ে আসা ট্রেনে চড়ে এই স্টেশন থেকে ময়মনসিংহ যায়, বিনা টিকিটে ট্রেনে চড়ার কারণে ট্রেনের টিটি এ যাত্রীদের জারিয়া-ময়মনসিংহ পর্যন্ত টিকিটের টাকা জরিমানা করে। বিসকা স্টেশনে রেলের টিকিট না পাওয়ার কারণে মোহনগঞ্জ, ভৈরবসহ অন্যান্য লোকাল ট্রেনেও এ এলাকার যাত্রীদের জরিমানা দিতে হয়।

গত বৃহস্পতিবার সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, পাকা ভবনের বিসকা স্টেশনের বুকিং অফিস, স্টেশনমাস্টার অফিস, রিলে রুম, ব্যাটইর রুম, টিকিট কাউন্টার তালাবদ্ধ। ভবনের বেশ কয়েকটি কক্ষের দরজা-জানালা নেই। যত্রতত্র মলমূত্র ত্যাগ ও ময়লা আবর্জনা ফেলে বিশ্রামাগারটি ভাগাড়ে পরিণত করেছে।

বিসকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুস সালাম বলেন, বিসকা রেলস্টেশন চালু করার জন্য এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করার পাশপাশি স্থানীয় সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে ও মন্ত্রী পর্যন্ত যোগাযোগ করেছে। কিন্তু স্টেশন চালু হয়নি। আমরা স্টেশনটি দ্রুত চালু করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি।

ময়মনসিংহ স্টেশনের সুপারিনটেনডেন্ট জহুরুল ইসলাম বলেন, লোকবল সংকটের কারণে বিসকা স্টেশনের কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যদি লোকবল নিয়োগ করে তাহলে এই স্টেশন ফের চালু করা হবে।

 

"