গ্রেফতার এড়ানোর অভিনব ফন্দি শেষে ইয়াবার বিষে মৃত্যু!

প্রকাশ : ২৩ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

তিনি মাদকে আকাসক্ত। মাদকের কারবারও করেন। র‌্যাবের সদস্যরা তাকে ধরতে গেলে তিনি অভিনব ফন্দি আটেন। গ্রেফতার এড়ানোর জন্য একসঙ্গে অনেকগুলো ইয়াবা বড়ি খেয়ে ফেলেন। না, শেষ রক্ষা হয়নি। র‌্যাব তাকে গ্রেফতার করে। ওই গ্রেফতার থাকা অবস্থায়ই মাদকের বিষে মারা যান তিনি।

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) হাতে এক যুবক গ্রেফতার হওয়ার আট ঘণ্টা পর অসুস্থ অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর তার মৃত্যু হয়। র‌্যাবের দাবি, ওই যুবক মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। গ্রেফতার এড়াতে অতিরিক্ত ইয়াবা বড়ি খাওয়ার ফলে তার মৃত্যু হয়। মারা যাওয়া যুবকের নাম মো. শাকিল খান (২৮)। শাকিলের বাড়ি দশমিনা উপজেলার পূর্ব আলীপুর গ্রামে। তার বাবার নাম মো. শাহ আলম খান। গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার পর বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শাকিলের মৃত্যু হয়। মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শাকিলকে দশমিনা উপজেলার রমানাথ সেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে গ্রেফতার করে পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ এর একটি দল। প্রত্যক্ষদর্শী ও শাকিলের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে শাকিলকে সাদা পোশাকধারী কয়েকজন আটক করে মারধর করেন। স্থানীয় লোকজন বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে। তবে সাদা পোশাকধারী ব্যক্তিরা র‌্যাবের পরিচয়পত্র দেখালে স্থানীয় লোকজন সরে দাঁড়ান। র‌্যাবের দাবি, গ্রেফতার এড়াতে শাকিল সঙ্গে থাকা অনেক ইয়াবা বড়ি খেয়ে ফেলেন। এ কারণে অসুস্থ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা, র‌্যাব ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শাকিল ছিলেন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তিনটি মামলা ছিল।

শাকিলের এক স্বজন অভিযোগ করেন, শাকিলকে গ্রেফতার করা হয়েছে বিকেল সাড়ে ৩টায়। অথচ বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে রাত ১১টা ১০ মিনিটে। গ্রেপ্তারের আগেই শাকিল ইয়াবা ট্যাবলেট খেয়ে থাকলে দীর্ঘ সময়ে কেন শাকিলকে চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়নি? এ বিষয়ে জানার জন্য র‌্যাব-৮ এর মুঠোফোনে কল করলেও কেউ ধরেননি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা আখতারউজ্জামান বলেন, গতকাল রাত ১১টা ১০ মিনিটের দিকে র‌্যাবের সদস্যরা শাকিলকে অসুস্থ অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করান। র‌্যাবের সদস্যরা জানান, শাকিল ইয়াবা বড়ি খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। ওই সময় শাকিল কথা বলতে না পারলেও ইয়াবা বড়ি খাওয়ার কথা মাথা নেড়ে স্বীকার করেন। তার পাকস্থলী ওয়াশের জন্য ওয়াশকক্ষে নেওয়া হলে তার মৃত্যু হয়। চিকিৎসক বলেন, অতিরিক্ত ইয়াবা বড়ি সেবনে বিষক্রিয়ায় তার মৃত্যু হতে পারে। বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যাবে লাশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভর্তি খাতার তথ্য অনুযায়ী, র‌্যাব-৮ এর দায়িত্বে থাকা সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) সোয়েব আহম্মেদ শাকিলকে ভর্তি করান। বাউফল থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় বাউফল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

"