ছাত্রীর সহায়তায় বখাটে ধরল পুলিশ

প্রকাশ : ১৭ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে ছাত্রীর সাহসী ভূমিকায় এক বখাটেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চট্টগ্রাম সিটি কলেজের বিবিএস তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফারহেনা নওরিনের অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার ভোরে তানভীর আহমেদ সিদ্দিককে বাকলিয়া থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ দিন দুপুরে কোতোয়ালি থানায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন জানান, ঘটনার পর মেয়েটি ফেসবুকে ভিডিও প্রচার করে। পুলিশের কাছে অভিযোগ করে বখাটেদের শাস্তির দাবি জানায়। পরে সেই ভিডিও ফেসবুকে প্রচার করে তাদের পরিচয় বের করে পুলিশ। শনিবার ভোরে অভিযান চালিয়ে ইভটিজিং এ জড়িত তানভীর আহমেদ ছিদ্দিককে গ্রেফতার করা হয়। তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিও জব্দ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগকারী শিক্ষার্থী ফারহেনা নওরিন উপস্থিত ছিলেন।

নওরিন সাংবাদিকদের জানান, তিনি মিশুক নামে একটি সামাজিক সংগঠনের সদস্য। তারা সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে নিয়ে কাজ করেন। গত ৬ মার্চ সংগঠনের কাজ শেষ করে রিকশাযোগে বাসায় ফেরার পথে মোটরসাইকেল আরোহী দুই বখাটে তাকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। এ সময় বখাটেরা তাকে উদ্দেশ্য করে বিশ্রী অঙ্গভঙ্গী করে, এমনকি তার ওড়না ধরে টান দেন। এসবে বিব্রত হলেও তাৎক্ষণিকভাবে মোবাইল বের করে বখাটেদের কার্যকলাপ ভিডিও করে নেয়।

পরবর্তী সময়ে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে দিলে তা কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসীনের নজরে আসে। তিনি নিজে ওই ভিডিও তার ফেসবুক টাইমলাইনে শেয়ার করে সবার উদ্দেশ্য আহ্বান জানান বখাটেদের চিহ্নিত করার কাজে পুলিশকে সাহায্য করতে।

এ ঘটনার সূত্র ধরে গতকাল শনিবার তানভীর আহমেদ সিদ্দিককে আটক করে পুলিশ। অভিযুক্ত অন্য বখাটে মোহাম্মদ সোহেল পলাতক আছে বলে জানিয়েছেন ওসি মহসিন। নওরিনের সচেতনতাকে দৃষ্টান্তমূলক অভিহিত করে ওসি মহসীন বলেন, এই ধরনের ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটছে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মেয়েরা এসব চেপে যায়। নওরীন ব্যতিক্রমীভাবে সাহসিকতা দেখাতে পেরেছে বলেই বখাটেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া গেছে। নওরিনের কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে সমাজের বাকি শিক্ষার্থীরাও এভাবে প্রতিরোধ করতে থাকলে সমাজ থেকে এই ধরনের অপরাধ পুরোপুরি দমন করতে বেশি সময় লাগবে না বলেন ওসি মোহাম্মদ মহসিন।

 

"