প্রতিদিন কতটা চুল পড়া স্বাভাবিক

প্রকাশ | ১৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

প্রতিদিন ঝরছে মাথার চুল।

দু-একটা চুল পড়া স্বাভাবিক হলেও অতিরিক্ত চুল পড়া কিন্তু অস্বাভাবিক। অতিরিক্ত চুল পড়লে দেখা যায়, আপনার মাথায় টাক পড়ে যাচ্ছে। চুল পড়া, চুল উঠে যাওয়া বা চুল পাতলা হয়ে যাওয়া সত্যিই কিন্তু চিন্তার বিষয়। কারণ চুল পড়ে নতুন চুল না গজালে আস্তে আস্তে মাথায় টাক পড়ে যায়। নারী-পুরুষ সবাই চুল পড়ার শিকার। চুল কেরাটিন নামে একরকম প্রোটিন দিয়ে তৈরি ও ৯৭ শতাংশ প্রোটিন ও ৩ শতাংশ পানি রয়েছে। চুলের যেটুকু আমরা দেখি, সেটি মৃত কোষ। মনে রাখবেন, কোনো বিষয়ে সমাধান জানতে হলে আগে আপনাকে বুঝতে হবে সমস্যাটি কেন হচ্ছে। আপনি যদি বুঝতে পারেন যে কেন চুল পড়ছে, তবে আপনার চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ সহজ হবে।

আপনার চুল কি পরিমাণে পড়ছে। স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে চুল পড়া ও নিয়ন্ত্রণের বিভিন্ন বিষয় জানা গেছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের তথ্যানুযায়ী, প্রতিটা চুলের জীবনকাল দুই থেকে আট বছর। মানুষের মাথায় সামান্য কমবেশি ১০ হাজার চুল থাকে। এখন প্রশ্ন হলো- আপনার চুল পড়ছে। প্রতিদিন কতটা চুল পড়া স্বাভাবিক। প্রতিদিন ১০০ থেকে ১২৫টি চুল পড়া স্বাভাবিক।

যেভাবে বুঝবেন অতিরিক্ত চুল পড়ছে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১২৫টি চুল পড়া স্বাভাবিক। তবে এই চুল গুনে বের করা সম্ভব হয়ে উঠে না। বৃদ্ধাঙ্গুলিসহ চার আঙুল দিয়ে ধরে আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত টান টান করে ধরুন। যদি ছয়টি বা তার বেশি চুল উঠে আসে, তবে বুঝতে হবে অতিরিক্ত চুল পড়ছে।

কেন অতিরিক্ত চুল পড়ে? বিভিন্ন কারণে চুল পড়তে পারে। অতিরিক্ত চুল পড়া ‘টেলোজেন ইফ্লুভিয়াম’এর ইঙ্গিত দেয়। আয়রনের স্বল্পতা, অতিরিক্ত মানসিক চাপ, ফলিকলের দুর্বলতা, খুশকি, কলপ ও কৃত্রিম রং, কোঁকড়া চুল সোজা করার চেষ্টা, টেনে চুল বাঁধা, শ্যাম্পুসহ বিভিন্ন কারণে অতিরিক্ত চুল পড়তে পারে।

অতিরিক্ত চুল পড়া বন্ধে কী করবেন? চুল যদি অতিরিক্ত পড়ে, তবে তা বন্ধ করা জরুরি। কারণ চুল না থাকলে আপনার বাহ্যিক সৌন্দর্য দারুণভাবে ব্যাহত হয়। আসুন জেনে নিই অতিরিক্ত চুল পড়লে কী করবেন?

১. অতিরিক্ত মানসিক চাপ কমাতে হবে। ২. শ্বাস নেওয়া, চুল মালিশ ও শরীরচর্চা করা এবং পর্যাপ্ত ঘুমের প্রয়োজন। ৩. আয়রনসমৃদ্ধ সুষম খাবার খাওয়া, চুলে রাসায়নিক উপাদান এড়িয়ে চলা। ৪. খুব বেশি শ্যাম্পু করা, তাপ প্রয়োগ ও রাসায়নিক স্প্রে করা থেকে বিরত থাকুন। ৫. পুষ্টিকর খাবার ও পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খান। ৬. চুল খুশকিমুক্ত ও পরিষ্কার রাখুন। ৭. কলপ, কৃত্রিম রং ব্যবহার করবেন না। ৮. কোঁকড়া চুল সোজা করবেন না। ৯. ভেজা চুল আঁচড়াবেন না। ১০. চুলের ধরন বুঝে শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন।

 

"