সন্দেহজনক পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্টের নির্দেশ আইজিপির

প্রকাশ : ১৩ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

রাজশাহী ব্যুরো

সন্দেহভাজন মাদকাসক্ত পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী পুলিশ লাইনে নারী-পুলিশের ব্যারাক ভবনের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি। আইজিপি বলেন, পুলিশের যে সদস্যের আচার-ব্যবহার ও অন্যান্য লক্ষণ দেখে সন্দেহ হবে তাদের ডোপ টেস্টের মুখোমুখি হতে হবে। এজন্য পুলিশের সব ইউনিট প্রধানকে এরই মধ্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমরাই প্রথম ডোপ টেস্ট করে চাকরিতে যোগদান করাচ্ছি। এখন অন্যান্য সংস্থাও শুরু করেছে। পুলিশের সব ইউনিটকে এরই মধ্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, যেকোনো সময় কোনো পুলিশ সদস্যের আচারণে বা তথ্যের ভিত্তিতে যাকে মাদকাসক্তে সন্দেহভাজন মনে হবে তার সঙ্গে সঙ্গে ডোপ টেস্ট করানো হবে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

আইজিপি রাজশাহী মহানগর পুলিশ সদর দফতর ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, মহানগর পুলিশ ও জেলা পুলিশের পৃথক দুটি নতুন ব্যারাক ভবন উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেনÑ রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি খুরশিদ আলম, পুলিশ কমিশনার এস এম হাফিজ আক্তার, জেলা পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহসহ কর্মকর্তারা। এর আগে পুলিশ লাইনে আরএমপির পুলিশের নারী কল্যাণ সমিতির কার্যালয় ভবন এবং শোরুম উদ্বোধন করেন সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও আইজিপি পত্মী হাবিবা জাবেদ।

আরএমপি সূত্র জানায়, নগরের সিঅ্যান্ডবি মোড়ের পাশে প্রায় ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে মহানগর পুলিশের সদর দফতরের দেড় হাজার বর্গফুটের ১০ তলা ভবন নির্মাণ করা হবে। ওই ভবনে আধুনিক কনফারেন্স রুমসহ ৫০টি গাড়ি পার্কিংয়ের সুবিধা থাকছে। এছাড়াও থাকবে তিনটি লিফট। আগামী ৯ মাসের মধ্যে এর নির্মাণকাজ শেষ হবে। এছাড়াও পুলিশ লাইনে আরএমপির ছয় তলা বিশিষ্ট একটি নতুন ব্যারাক ভবন ও জেলা পুলিশের একটি নতুন দ্বিতীয় তলা বিশিষ্ট নারী পুলিশের নতুন ব্যারাক ভবন নির্মাণ করা হয়। এর মধ্যে আরএমপির ব্যারাক ভবনে ৫১৫ জন ও জেলা পুলিশের নারী ব্যারাক ভবনে ২৫৫ জন পুলিশ সদস্যের আবসন ব্যবস্থা রয়েছে।

 

"