সভায় সিদ্ধান্ত

চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারকে সহযোগিতা করবে ১৪ দল

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

অতীতের মতো আগামীতেও নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারকে সহযোগিতা ও একসঙ্গে কাজ করে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। গতকাল বুধবার ১৪ দলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যে লক্ষ্য সামনে রেখে ১৪ দল গঠিত হয়েছিল তা এখনো পুরোপুরি বাস্তবায়ন না হওয়ায় এর প্রয়োজনীয়তা শেষ হয়নি বলে জোটের শরিক দলগুলো মনে করছে। সভা শেষে ১৪ দলের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম ও এ জোটের শরিক দল জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আদর্শ ও লক্ষ্যকে ধারণ করে ১৪ দল এগিয়ে যাচ্ছে। কোনো পদপদবি বা লঘু কারণের জন্য ১৪ দল সংগঠিত হয়নি। যত দিন পর্যন্ত ১৪ দলের লক্ষ্য অর্জন না হবে ততোদিন এ জোট কাজ করে যাবে। ১৪ দল পাহাড়ের মতো ঐক্যবদ্ধ আছে। দুঃসময় ও সুসময় সব সময়ই ১৪ দল শেখ হাসিনার পাশে আছে থাকবে। চোখের মণির মতো তাকে রক্ষা করবে। ‘স্বাধীনতাবিরোধী অশুভ শক্তি বিএনপি-জামায়াত আছে, যারা চক্রান্ত করে যাচ্ছে। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর বিরুদ্ধে যেকোনো সংগ্রাম ও লড়াইয়ে ১৪ দল প্রস্তুত থাকবে।’

নাসিম বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি আইনের বিষয়। তার জন্য সরকারকে হুমকি-ধামকি দিয়ে লাভ নেই। তিনি এখন আর রাজনৈতিক ব্যক্তি নন, আদালতে দ-িত।

হাসানুল হক ইনু বলেন, যে ২৩ দফার ভিত্তিতে ১৪ দল গঠিত হয়েছিল, তার অনেক লক্ষ্য অর্জন হলেও কিছু কাজ বাকি আছে। এই লক্ষ্য পূরণে আমরা ধারাবাহিকভাবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কাজ করে যাব। এখনো সাম্প্রদায়িকতা বিরাজমান আছে। স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধী, রাজাকার ও তাদের দোসর বিএনপি পরাজিত হলেও এখনো চক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে। তাই ১৪ দলের রাজনীতির প্রয়োজনীয়তা আছে। এখনো বাংলাদেশ বিপদের মধ্যেই আছে। নতুন প্রেক্ষাপটের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ১৪ দলকে শেখ হাসিনা সরকারের সঙ্গে কাজ করতে হবে। আমরা এক সঙ্গে কাজ করব।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সভা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মোহাম্মদ নাসিম। গত ৭ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের নতুন সরকার গঠনের পর এটিই প্রথম সভা ১৪ দলের।

সভায় ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের সভাপতি ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভা-ারীসহ জোটের নেতারা।

"