বেতনের টাকা না দেওয়ায় ঘুমন্ত স্ত্রীর গায়ে আগুন

প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

বেতনের টাকা না দেওয়ায় এক পাষ- তার ঘুমন্ত স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে হত্যা করেছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। নিহতের নাম শিউলী আক্তার (২৭)। এ ঘটনায় আটক স্বামী শাহীদুল ইসলামকেও আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুরে। নিহত শিউলী আক্তার ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের শুক্কুর আলীর মেয়ে। তিনি উপজেলার মুলাইদ গ্রামে স্থানীয় রশিদের বাড়িতে ভাড়া থেকে ডিবিএল গ্রুপে অপারেটর পদে চাকরি করতেন। স্বামী শাহীদুল ইসলামের বাড়ি বরিশালে।

নিহত শিউলীর ভাইয়ের স্ত্রী সোহেনা আক্তার বলেন, টাকা পয়সা নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। তবে শাহীদুল ইসলাম শুধু মাসের ৫ থেকে ১০ তারিখে শিউলীর সঙ্গে দেখা করতে আসতো। টাকা নিয়ে আবার তার অন্য স্ত্রীর কাছে ফিরে যেত। প্রতিবেশী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শাহীদুল-শিউলীর বিয়ে হয় ২০০৫ সালের দিকে। শিউলী ছাড়াও তার আরেক স্ত্রী রয়েছে, ওই স্ত্রীর কাছেই অন্য জায়গায় থাকত শহীদুল। মাঝে মাঝে শিউলী বেতন পেলে স্বামী টাকা নিতে আসত। গত কয়েক দিন আগে স্বামী এসে শিউলীর কাছে টাকা চায়। বেতন না হওয়ায় এবং টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় সোমবার তাদের মধ্যে ব্যাপক ঝগড়া হয়। এ দিন রাতেই শিউলী কাজ থেকে ফিরে ঘুমিয়ে পড়লে তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয় স্বামী। তার চিৎকারে পাশের লোকজন চিৎকার শুনে এগিয়ে এসে ঘরের দরজা ভেঙে শিউলীকে উদ্ধার করা হয়। এর আগেই আগুনে তার শরীরের বেশির ভাগ অংশ পুড়ে যায়। এ ঘটনায় তার স্বামীও আহত হয়। পরে পুলিশ শহীদুলকে আটক করে নিয়ে যায়। মুমূর্ষু অবস্থায় শিউলীকে ওই রাতেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয়। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাবেদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

"