হুইলচেয়ারে সেই হৃদয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিন

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ঢাবি প্রতিনিধি

হুইলচেয়ারে চড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিন ক্লাসে গেছেন সেই হৃদয় সরকার। ক্লাস শেষে সহপাঠীদের সঙ্গে আড্ডায়ও যোগ দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের হাকিম চত্বর আর ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) এলাকায় হৃদয়কে হুইলচেয়ারে ঘুরতে দেখা গেছে।

২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে ভর্তি হন হৃদয়। প্রথমেই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মের কাছে হেরে যেতে বসেছিলেন তিনি। কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুধু দৃষ্টি, শ্রবণ এবং বাকপ্রতিবন্ধীদের কোটায় ভর্তির বিধান ছিল।

পরে যখন বিভিন্ন গণমাধ্যমে হৃদয়ের বিষয়টি আলোচনায় আসে, তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মের মধ্যে অন্য প্রতিবন্ধীদের ভর্তির বিষয়টিও আনা হয়। সে সুযোগে হৃদয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পেরেছেন। তার উচ্চশিক্ষার পেছনে মা সীমা রানী সরকারের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি।

বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে প্রথম ক্লাসের অনুভূতির বিষয়ে জানতে চাইলে হৃদয় সরকার বলেন, ‘আজকে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ক্লাস ছিল। আমার বন্ধুরা আমাকে খুব ভালোভাবে গ্রহণ করেছে। প্রথম ক্লাস নিয়েছেন রাশেদুজ্জামান স্যার। ক্লাস শেষে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে টিএসসি, হাকিম চত্বর এলাকা ঘুরেছি। তারা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। আমার এত খুশি লাগছে যা প্রকাশ করার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। আমার মায়ের পরিশ্রম সার্থক হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বন্ধুর নাম জানতে চাইলে হৃদয় বলেন, ‘আমি কোনো বন্ধুর নাম বলতে চাই না। কারণ কয়েকজনের নাম বললে অন্যরা মনে কষ্ট পাবে। সবাই আমার বন্ধু।’

স্বপ্ন বাস্তবায়নে ছেলের সফলতায় খুশি তার মা-ও। এ বিষয়ে হৃদয় সরকারের মায়ের সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, ‘আমার সারা জীবনের পরিশ্রম সার্থক হয়েছে। আমার ছেলের স্বপ্ন ছিল সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বে। আজকে তার স্বপ্ন বাস্তব হলো। এতে আমি এবং ছেলে মহাখুশি। সবাই আমার ছেলের জন্য দোয়া করবেন।’

উল্লেখ্য, মায়ের কোলে চড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘খ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দেন হৃদয় সরকার। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তার একটি ছবি ভাইরাল হয়। হৃদয় সরকারকে নিয়ে কয়েকটি পত্রিকাতে খবরও প্রকাশিত হয়।

"