জাতীয় সংসদ নির্বাচন

কচুয়ায় বিএনপি প্রার্থীর সঙ্গে নেই যুবদল

প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

কচুয়া (চাঁদপুর) প্রতিনিধি
ama ami

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-১ আসনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মুহাম্মদ মোশারফ হোসেনের নির্বাচন বর্জন করেছে উপজেলা জাতীয়তাবাদী যুবদল। গতকাল শনিবার বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আ ন ম এহসানুল হক মিলন সমর্থিত কচুয়া উপজেলা জাতীয়তাবাদী যুবদল সভাপতি মাসুদ এলাহী সুভাষ ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম মিন্টুর স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নির্বাচন বর্জনের খবর জানানো হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘বিএনপি এমন সংকটাপন্ন মুহূর্তে অসাংগঠনিক, অনিয়মতান্ত্রিক, হটকারী ও আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের মাধ্যমে সাবেক সফল শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আ ন ম এহসানুল হক মিলনের পরিবর্তে মুহাম্মদ মোশারফ হোসেনকে চাঁদপুর-১ কচুয়া আসনে ধানের শীষের মনোনয়ন দেওয়ায় কচুয়ার ২৪২টি গ্রামসহ সারা দেশের জাতীয়তাবাদী মনা মানুষের মধ্যে চরম হতাশা সৃষ্টি হয়েছে।’

‘ড. এহসানুল হক মিলনের মতে, একজন যোগ্য নেতা থাকা সত্ত্বেও কোনো কারণ ছাড়াই অচেনা অজানা মালয়েশিয়া অবস্থানরত একজন সাধারণ লোককে মনোনয়ন দেওয়া হলো। যার কচুয়ায় বিএনপির সাংগঠনিক কোনো কর্মকান্ডে সংশ্লিষ্টতা নেই। কচুয়ার জনগণ তাকে চেনে না। গণতান্ত্রিক কোনো আন্দোলনে তার বিন্দুমাত্র সম্পৃক্ততা নেই।’ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, ‘গুটি কয়েক সুবিধাভোগী বিএনপির লোকজনের কুপরামর্শে ড. এহসানুল হক মিলনকে হেয়প্রতিপন্ন করতেই ওই ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। আমরা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এজন্য শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রতিবাদ জানিয়েছি। কিন্তু তাতেও কোনো ফল আসেনি। কচুয়ার মাটি মিলনের ঘাঁটি, এখানে ধানের শীষের বিজয়ে একমাত্র কান্ডারী ড. আ ন ম এহসানুল হক মিলন।’

‘এখন মোশারফ নামে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হলো তার সার্বিক অযোগ্যতার জন্য তাকে দিয়ে কোনোভাবেই এ আসনের বিজয় আনা সম্ভব নয়। তাই তার জন্য নির্বাচনের ব্যর্থ চেষ্টা করে উলুবনে মুক্তা ছড়াতে চাই না। তাই আমরা কচুয়া উপজেলা জাতীয়তাবাদী যুবদলের সব নেতাকর্মীর মানসিকতা পর্যালোচনা ও তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পূর্ণরূপে বর্জন করতে বাধ্য হলাম।’

 

"