ইভিএম পরিচালনায় তিন সহস্রাধিক সেনা সদস্য

প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পরিচালনার জন্য ৩ হাজার ৩০০ সেনা সদস্য মোতায়েন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোট গ্রহণ হলেও সীমিত পরিসরে মোট ছয়টি আসনকে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে বেছে নিয়েছে নির্বাচন আয়োজনকারী সংস্থাটি। এ ক্ষেত্রে রংপুর-৩, খুলনা-২, সাতক্ষীরা-২, ঢাকা-৬ ও ১৩ এবং চট্টগ্রাম-৯ আসনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। এসব আসনে মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৮৫৪টি। সূত্র জানায়, ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের কারিগরি সহায়তার জন্য থাকবে ২ হাজার ৫৩৫ জন সেনা সদস্য। প্রতি কেন্দ্রের জন্য গঠিত একেকটি টিমে থাকবেন সশস্ত্র বাহিনীর তিনজন করে সদস্য। তাদের মধ্যে একজন করপোরাল, দুজন ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক বা সমমর্যাদার সেনা সদস্য। তাদের কাছ থেকে তথ্য নেবে ভ্রাম্যমাণ কারিগরি টিম। এই টিমে থাকবেন ৫০৭ সেনা সদস্য। প্রতি পাঁচ কেন্দ্রের জন্য গঠিত প্রতি টিমে থাকবেন তিনজন করে সেনা সদস্য। তাদের মধ্যে একজন সার্জেন্ট, দুজন করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল বা সৈনিক সমমর্যাদার সেনা সদস্য নিয়োজিত থাকবেন।

ভ্রাম্যমাণ টিমের কাছ থেকে তথ্য নেবে ভ্রাম্যমাণ তদারকি টিম। প্রতি ১৫ কেন্দ্রের জন্য একটি টিম থাকবে। এ ক্ষেত্রে ১৬৯ সেনা সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। যাদের মধ্যে রয়েছেন একজন জেসিও, দুজন সার্জেন্ট অথবা ল্যান্স করপোরাল বা সমমর্যাদার সেনা সদস্য। তাদের ওপর কাজ করবে প্রতি ৫০ কেন্দ্রের জন্য গঠিত একটি করে ১৭ টিম। আর প্রতি টিমে তিনজন করে ৫১ সেনা সদস্য কাজ করবেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন একজন মেজর অথবা ক্যাপ্টেন অথবা লেফটেন্যান্ট, একজন জেসিও এবং করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক সমমর্যাদার সেনা সদস্য। এই টিম সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা বা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা কার্যালয়ে স্থাপিত কন্ট্রোল রুমের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবেন।

আর সবগুলো টিমের কাজ তত্ত্বাবধান করবে উচ্চপর্যায়ের আরেক টিম। প্রতি আসনে পাঁচজন করে সেনা সদস্য নিয়ে এই টিম গঠিত হবে। অর্থাৎ, মোট ছয়টি আসনে ৩০ সেনা সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। এতে একজন মেজর, দুজন ক্যাপ্টেন অথবা লেফটেন্যান্ট, একজন জেসিও অথবা সার্জেন্ট এবং একজন করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক সমমর্যাদার সদস্য।

 

"