লম্পটের মারাত্মক দন্ড!

প্রকাশ : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
ama ami

পাপ ও অবৈধ কাজের ফল হয় বিষবৃক্ষের মতো। যে বিষবৃক্ষ পাপীকে নিয়ে যায় মারাত্মক পরিণতির দিকে। তেমনই যন্ত্রণায় ভুগছেন এখন সিরাজগঞ্জের এক লম্পট পুরুষ। তার সঙ্গী দুশ্চরিত্র নারী রওশনারা আছেন জেলহাজতে। পুলিশ ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জানা গেছে, অবৈধ শারীরিক সম্পর্কের জের ধরে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে এক লম্পটের পুরুষাঙ্গ কর্তন করে নিজেই থানায় ধরা দিয়েছেন এক নারী। গত রোববার রাতে উপজেলার বাগবাড়ী খাঁ পাড়া গ্রামে

এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার বাগবাড়ী গ্রামের দুলালের (৪৫) সঙ্গে একই গ্রামের পাশের বাড়ির সাত্তারের স্ত্রী রওশনারা বেগমের (৪৫) বেআইনি শারীরিক সম্পর্ক চলছিল। এ নিয়ে এলাকার মাতবররা একাধিকবার সালিশও করেছেন। পরিবারের কথা ভেবে এই সমাজ নিন্দার সম্পর্ক বাতিল করার জন্য দুলালকে একাধিকবার অনুরোধ করেন রওশনারা। কিন্তু লম্পট দুলাল এ প্রস্তাবে রাজি না হয়ে বারবার হয়রানি ও ভয়ভীতি দেখাতে থাকে রওশনারাকে। এরই একপর্যায়ে গত রোববার রাতে ক্ষিপ্ত হয়ে পূর্বপরিকল্পিতভাবে রওশনারা তার বাড়ির পেছনে বাঁশঝাড়ে দুলালকে ডেকে নিয়ে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ার সময় ধারালো বঁটি দিয়ে দুলালের পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন। এরপর ওই নারী কাটা পুরুষাঙ্গ ও বঁটি নিয়ে থানায় আসেন।

কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুল ইসলাম জানান, প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কর্তন করা ওই নারী স্বেচ্ছায় থানায় কর্তন করা পুরুষাঙ্গ ও বঁটি নিয়ে আসে। তখন তাকে থানা হেফাজতে রেখে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়। এ ঘটনায় দুলালের মা সুরাতন বেওয়া বাদী হয়ে মামলা করেছেন। অভিযুক্ত রওশনারাকে গতকাল সোমবার সিরাজগঞ্জ আদালতে হাজির করে হাজতে পাঠানো হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় দুলালকে উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

"