সরিষাবাড়ীতে অদ্ভুত আকৃতির যমজ শিশুর জন্ম

প্রকাশ : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে মাথায় অদ্ভুত আকৃতির মাংসপিন্ডসহ যমজ কন্যাশিশু জন্ম দিয়েছেন এক মা। সোমবার সকালে উপজেলার মহাদান ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় উৎসুক জনতা শিশু দুইটি দেখতে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভিড় জমায়। প্রসূতি মাহফুজা বেগম একই ইউনিয়নের হোসনাবাদ গ্রামের দরিদ্র কৃষক আবদুল হামিদের স্ত্রী।

উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার লাইলি বেগম জানান, গত রোববার সকাল থেকে গর্ভবতী মাহফুজার প্রসবব্যথা ছিল। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শ্বশুর-শাশুড়িকে সঙ্গে নিয়ে তিনি মহাদান ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসেন। কিছুটা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সোয়া ১০টার দিকে তার স্বাভাবিক প্রসব হয়। এক সঙ্গে তিনি দুইটি যমজ কন্যাশিশুর জন্ম দেন। একটি শিশুর মাথার ওপর বড় আকারের অতিরিক্ত মাংসপিন্ড এবং অপর শিশুর মাথার ওপর জমাটবাঁধা রক্তের মতো লাল মাঝারি আকার মাংসপিন্ড দেখা হয়। মা ও শিশু দুইটি সুস্থ আছে। এদিকে শিশু দুইটি একনজর দেখতে স্থানীয় উৎসুক জনতা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভিড় জমালে জটলার সৃষ্টি হয়। শিশু দুইটির উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকেল ৩টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তৃপক্ষ তাদের জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করে।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এ বি এম শফিকুর রহমান বলেন, ‘এমন শিশু জন্মদানের ঘটনা খুব বিরল। সুনির্দিষ্ট কোনো রোগের নাম বলা যাচ্ছে না। মূলত এটি ‘অ্যাবনরমাল ক্রোথ, শিশু দুইটির মগজ মাথার ভেতর থেকে বাইরে বের হয়ে আসার কারণে হতে পারে। এছাড়া হরমোনগত সমস্যা বা গর্ভকালীন আঘাতের কারণও থাকতে পারে।’ এদিকে শিশু দুইটির বাঁচার সম্ভাবনা কম বলেও তিনি জানান।

প্রসূতি মাহফুজা বেগম জানান, ‘এটি তাঁর তৃতীয়বারের মতো প্রসব। এর আগে একটি মেয়ে ও একটি ছেলে রয়েছে। তার পরিবার দরিদ্র বলে গর্ভের সময় কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও উন্নত চিকিৎসা গ্রহণ বা ভালো খাবার খেতে পারেননি।’

"