তাজমহল দেখতে গিয়ে গ্রেফতার সেই সমীর ফিরছে আজ

প্রকাশ : ১১ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

মা-বাবার সঙ্গে ঝগড়া করে পাঁচ বছর আগে ১১ বছরের কিশোর মো. সামিরুজ্জামান ওরফে সমীর আহমেদ বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ঢুকে পড়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে। তারপর লোকজন ধরে চলে যায় আগ্রায় তাজমহল দেখতে। ফেরার পথে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। পাঁচ বছর পর ভারত থেকে আজ দেশে ফিরছে সেই কিশোর। এখন তার বয়স ১৬।

সমীরের বাড়ি ঢাকার মিরপুর এলাকায়। বাবা শামীম আহমেদ কাপড় ব্যবসায়ী। গ্রেফতারের পর সমীরকে পুলিশ ঠাঁই দেয় দক্ষিণ চব্বিশপরগনার ‘হরিপুরা আমরা সবাই সমাজ উন্নয়ন সমিতি’ বা হাসুস হোমে। জেরায় সমীর বলেছে, সে প্রথমে স্কুলে পড়াশোনা করত। তারপর মাদরাসায় ভর্তি হয়েছিল। সেখানে বসেই তাজমহল দেখার স্বপ্ন দেখা শুরু করে। এক দিন মা-বাবার সঙ্গে ঝগড়া করে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। বেনাপোল সীমান্তে এসে দালালের মাধ্যমে সীমান্ত পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ঢোকে। এরপর তাজমহল দেখার জন্য বিনা টিকিটে ট্রেনে করে চলে যায় আগ্রা। সেই হাসুস হোম চার মাস আগে বন্ধ হয়ে যায়। তখন ওই হোমে থাকা ৮১ জন বন্দি কিশোরকে স্থানান্তর করা হয় দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার কাকদ্বীপ বকের ঢোলা হাটের নূর আলী মেমোরিয়াল সোসাইটি পরিচালিত ‘মাতৃভূমি জুভেনাইল হোম’-এ। ওই সময় এ হোমে তিনজন বাংলাদেশি কিশোর ঠাঁই পায়। এর মধ্যে একজন সমীর। বাকি দুজন হলো আশিক (১৪) ও আপন হৃদয় (১৪)। এবার এই তিন কিশোরের মধ্যে প্রথম ছাড়া পাচ্ছে সমীর। বাকি দুজনের ছাড়া পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় প্রশাসনিক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে হোম কর্তৃপক্ষ।

আজ রোববার বেলা ১১টায় দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার পুলিশ হরিদাসপুর-বেনাপোল সীমান্ত পথে সমীরকে তুলে দেবে বাংলাদেশের হাতে। মাতৃতীর্থ হোমের সম্পাদক শেখ আসিফ ইকবাল গতকাল শনিবার সাংবাদিকদের বলেছেন, এখন তাদের হোমে আরো দুজন বাংলাদেশি কিশোর বন্দি রয়েছে। আজ সমীরকে পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ তুলে দেবে বাংলাদেশের হাতে।

 

"