দুদক কর্মকর্তা পরিচয়ে চাঁদাবাজি প্রতারক গ্রেফতার

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

মোবাইল ফোনে দুদকের তদন্তকারী পরিচয়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চাঁদাবাজি করার সময় মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দীন ওরফে ফয়সল রানা নামের এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। নারায়ণগঞ্জে ভূমি সহকারী মো. আবদুল জলিলকে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ইতোমধ্যে ৪ লাখ ৫ হাজার টাকাও হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকার গুলিস্তানের একটি হোটেলের সামনে থেকে দুদক পরিচালক মীর জয়নুল আবেদিন শিবলীর নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি টিম চাঁদাসহ তাকে গ্রেফতার করেছে। এর আগে ভুক্তভোগী আবদুুল জলিল তাকে আসামি করে পল্টন থানায় একটি মামলা করেন। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান, ফয়সল রানা সাংবাদিকদের কাছে নিজেকে মোহাম্মদ ফয়জুল বলে দাবি করেছেন। বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশে। মামলার নথি সূত্রে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুল জলিলের কাছে ফয়সল রানা নিজেকে দুদক কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তার বিরুদ্ধে দুদকে উত্থাপিত অভিযোগ থেকে রেহাই পেতে হলে সাত লাখ টাকা দাবি করেন। তা না হলে ফয়সল রানা আবদুল জলিলের বিরুদ্ধে মামলার চার্জশিট দেবে বলে হুমকি দেয়।

দুদক জানায়, ভূমি সহকারী কর্মকর্তা চাকরি হারানোর ভয়ে ভীত হয়ে দুই-তিন মাস আগে দুদকের কথিত তদন্তকারী কর্মকর্তা ফয়সল রানাকে প্রথমে ২ লাখ টাকা দেন। কয়েকদিন পর আরো ২০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে দেন। সর্বশেষ দুদকের ভুয়া তদন্তকারী কর্মকর্তা ফয়সল রানা আবদুল জলিলের কাছে ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। একইভাবে ফয়সলের আরেক সহযোগী দুদকের ভুয়া পরিদর্শক সোহেলকেও দুই কিস্তিতে ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা দেন। চক্রটি দুদকের নাম ভাঙিয়ে এভাবে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণা করে আসছে।

"