আসামে বাঙালি হটানোর অভিযোগ মমতার

প্রকাশ : ০৫ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের আসামে নাগরিকপঞ্জী তৈরি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে বলেছেন, তালিকায় ইচ্ছা করে বাঙালিদের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। ন্যাশনাল রেজিস্ট্রার অব সিটিজেন (এনআরসি) বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জীকে ব্যবহার করে আসামে ‘বাঙালি হঠাও’ এর অভিযোগ তার। বীরভূমের এক সভায় এমন অভিযোগ করেন তিনি।

ভিটেমাটি থেকে বাঙালিদের উচ্ছেদ করতেই এই পরিকল্পনা বলে অভিযোগ মমতার। তিনি বলেন, আসামে বাঙালি হঠানো শুরু হয়েছে। ইচ্ছা করে মানুষের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। আসামে গন্ডগোল হলে বাংলাতেও প্রভাব পড়বে। সেখানে কোনো বাঙালির বঞ্চনা মানব না। আমাদের কারো সঙ্গে এ রকম করবেন না। আগুন নিয়ে খেলবেন না। মানুষের গায়ে হাত পড়লে ছেড়ে দেব না। কাজের চেয়ে রাজনীতিই বেশি হচ্ছে। তবে আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনেওয়াল এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

আসামে মমতার প্রতিনিধি দল : বন্দুকধারীদের গুলিতে পাঁচ বাঙালি নিহতের ঘটনায় ভারতের আসামে দলীয় প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। এরই মধ্যে আসামে পৌঁছেছেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করবেন তারা। গত রোববার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

গত ১ নভেম্বর রাতে আসামের তিনসুকিয়া জেলার একটি গ্রামে একই পরিবারের তিনজনসহ মোট পাঁচ বাঙালিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এ ঘটনায় আসামের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন উলফাকে দায়ী করা হলেও ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে উলফা।

হত্যাকা-ের পর মমতার দল তৃণমূল কংগ্রেসের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এই অতি কঠিন সময়ে প্রাণ দেওয়া প্রতিটি বাঙালি পরিবারের পাশে রয়েছে তৃণমূল।

এই ঘটনার দায় নিয়ে আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালের পদত্যাগ দাবি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলটির নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, হিংসার এই সংস্কৃতি গোটা দেশেই ছড়িয়ে পড়ছে প্রবলভাবে। সবাইকে নিয়ে বাঁচাই পশ্চিমবঙ্গের ঐতিহ্য।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে আসামে বাঙালি হত্যার খবর পেয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন মমতা। সোশ্যাল নেটওয়ার্কে দলীয় কর্মীদের প্রোফাইল ছবি ‘কালো’ করে দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। নিজেও ফেসবুক-টুইটারে ছবি কালো করে দেন। সূত্র : এনডিটিভি, সাউথ এশিয়ান মনিটর।

নিহতদের পরিবারকে সাহায্যের ঘোষণা মমতার

আসামে নিহত পাঁচ বাঙালির পরিবার পিছু ১ লাখ টাকা সাহায্যের ঘোষণা দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল রোববার নিহতদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে এই তথ্য জানান তিনি। পাশাপাশি ঘটনা তদন্তের দাবি জানিয়েছে তৃণমূল। খবর জিনিউজের।

সাক্ষাৎকালে তৃণমূল বিধায়ক মহুয়া মৈত্র বলেন, মমতা দিদি আমাদের পাঠিয়েছেন। দিদি বলেছেন, গোটা বাংলা আপনাদের সঙ্গে আছেন।

এদিকে, পাঁচ বাঙালিকে গুলি করে হত্যাকা-ের জন্য বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসামকে (উলফা) সন্দেহ করা হয়। উলফা বাঙালিদের ওপর হামলা চালাতে পারে, সাত দিন আগে এমন তথ্য আসাম সরকারকে জানিয়েছিল দিল্লি। তিনি বলেন, গুজরাটে বিহারি খেদাও হচ্ছে, আসামে বাঙালি খেদাও চলছে।

 

"