মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি

দেশের সব খাতে উন্নয়ন হয়েছে

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিদ্যুৎ, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি বলেছেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ। এদেশের সবখাতে উন্নয়ন হয়েছে। বিশেষ করে বিদ্যুৎ, তথ্য প্রযুক্তি ও যুব সমাজের মান উন্নয়নে বেশ এগিয়েছে। গতকাল শনিবার ঢাকার প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁওয়ে দুই দিনের প্রিমিয়ার ব্যাংক আন্তর্জাতিক এডুকেশন এক্সপো-২০১৮ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। চতুর্থবারের মতো এই এক্সপোর আয়োজন করে ‘ফরেন অ্যাডমিশন অ্যান্ড ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ফ্যাকড-ক্যাব)।

তাজুল ইসলাম বলেন, ২০০৯ সালে দেখা গেছে মাত্র ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়েছে। ওই সময় ১২ ঘণ্টার ভেতর ১২ বার লোডশেডিং দেখা দিত। এ সমস্যা মোকাবিলায় ঠিক এক বছর পর বিদ্যুৎ উৎপাদানে দাঁড়ায় প্রায় ৬ হাজার মেগাওয়াটে। আর এখন ১৩ হাজারেরও বেশি উৎপাদন হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জনে আইসিটি অবকাঠামো উন্নয়ন, সারা দেশে হাইটেক পার্ক তৈরি, সফটওয়্যার রফতানি বাড়ানো, বিপিও খাতের উন্নয়ন, এক হাজার উদ্ভাবনী পণ্য তৈরি, গেম খাতের উন্নয়নসহ বহুমুখী উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছে সরকার। এসব উদ্যোগ বাস্তাবায়িত হলে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ এবং রফতানি আরো বাড়বে।

এ সংসদ সদস্য আরো বলেন, গত কয়েক বছরে যুব সমাজের বেশ উন্নয়ন হয়েছে। বিশেষ করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে খ্যাতিমান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা পড়াশুনা করতে যাচ্ছে। কয়েক বছরে হাজার হাজার শিক্ষার্থী পড়াশুনা করতে বিদেশে গেছে। পাশাপাশি যুব সমাজ দেশে উদ্যোক্তা হয়ে অর্থনৈতিক নির্ভরশীলতা বাড়াচ্ছে।

অনুষ্ঠান শেষে তিনি মেলার স্টলগুলো পরিদর্শন করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রিমিয়ার ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এম রিয়াজুল করিম (এফসিএমএ) বলেন, শিক্ষার্থীদের সহজে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে সহযোগিতায় ব্যাংকের সবগুলো শাখায় ওয়ান স্টপ সার্ভিস রয়েছে। এ ছাড়াও ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের ১১টি শাখায় শিক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য সার্ভিস সেন্টার খোলা হয়েছে।

এক্সপোর সদস্য সচিব মনিরুল হক বলেন, এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য হলোÑ আগ্রহী শিক্ষার্থীরা যাতে সঠিক তথ্য পায় তা নিশ্চিত করা। মানসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও ভিসা প্রসেসিংসহ সার্বিক সেবা নিশ্চিত করা দায়িত্ব নেন তারা। তিনি আরো বলেন, গেল বার চার হাজারের বেশি আগ্রহী শিক্ষার্থী এক্সপোতে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ইতোমধ্যে ২০২৫ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থানীয় এজেন্টরা এক্সপোতে থাকার নিশ্চয়তা দিয়েছেন। এক্সপোতে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে এবং ভর্তি জন্য কী যোগ্যতা প্রয়োজন তা জানতে পারবেন। ৪র্থ বারের মতো আয়োজনের অংশীদার হচ্ছে প্রিমিয়ার ব্যাংক।

আয়োজকরা জানান, এডুকেশন এক্সপোতে বিশ্বের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধির সঙ্গে কথা বলার সুযোগ, স্পট এডমিশন, বিভিন্ন সেবার ওপর বিশেষ ছাড় থাকবে। এ ছাড়াও বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের সরাসরি ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে ভর্তির সুযোগ আছে। ২০১০ সালে থেকে এ ধরনের এডুকেশন এক্সপোতে অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্য, লাটভিয়া, মালয়েশিয়া, চীন, ফিলিপাইন, নেপাল ও বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে।

তারা আরো বলেন, যুক্তরাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়তে যাওয়ার জন্য চলতি বছরে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী আবেদনের সংখ্যা বিগত বছরগুলোকে ছাড়িয়ে গেছে। শুধু যুক্তরাজ্য নয়, উচ্চশিক্ষার জন্য মানসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বাড়ছে। কিন্তু সঠিক নির্দেশনা এবং তথ্যের অভাবে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের নানা ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, প্রিমিয়ার ব্যাংকের রিটেইল ব্যাংকিং বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ শামীম মোর্শেদ, ব্র্যান্ড মার্কেটিং ও জনসংযোগ বিভাগের পধান মো. তারেক উদ্দিন, এক্সপোর আয়োজক কমিটি ফ্যাকড-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট মো. মনিরুজ্জামান।

 

"