জাবিতে সড়কে খানাখন্দ

প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

জাবি প্রতিনিধি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) অভ্যন্তরীণ কয়েকটি সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের সামনের সড়ক, জিমনেসিয়ামের সামনের সড়ক ও বিশ মাইল এলাকার একটি সড়কে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। ছোট ছোট খানা খন্দে ভরে গেছে এসব সড়ক। মূলত দীর্ঘদিন ধরে মেরামত না করায় এমন দশা। ফলে এসব সড়ক ব্যবহারকারী শিক্ষার্থীসহ অন্যান্য পথচারীদের চলাচলে দুর্র্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের সামনের সড়কের (কবির সরণী) বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট গর্ত তৈরি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই এসব গর্তে পানি জমে যায়। আবার ব্যস্ততম এই সড়কে পর্যাপ্ত সড়ক বাতি না থাকায় রাতের বেলা রিকশাচারী, সাইকেল আরোহী কিংবা সাধারণ পথচারী সবারই চলতে কষ্ট হয়। অনেক সময় ছোটখাটো দুর্ঘটনাও ঘটছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের জিমনেসিয়ামে যাওয়ার একমাত্র সড়টিতে দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশা বিরাজ করছে। ইটের তৈরি এই সড়কটির বিভিন্ন অংশ দেবে গেছে, কিছু অংশে ইট খোয়া গেছে। ফলে সড়কটি ব্যবহারকারী শিক্ষার্থী ও শারীরিক শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চলাচলে দুর্ভোগ নিত্য সঙ্গী। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র সংলগ্ন সড়ক ও বিশমাইল গেটে যাওয়ার সড়কটির বিভিন্ন অংশে খানা খন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

শারীরিক শিক্ষা বিভাগের এক কর্মকর্তা অভিযোগ করে বলেন, জিমনেসিয়ামে আসার একমাত্র সড়টি দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। আমরা বার বার প্রশাসনকে এ বিষয়ে জানিয়েছি। তবে কোনো কাজ হয়নি।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়কে বেহাল দশা বিরাজ করলেও সড়ক মেরামতে প্রশাসনের উদ্যোগের অভাব দেখছেন শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চলে আলোচনা-সমালোচনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের সামনের সড়কটি ব্যস্ততম সড়কগুলোর অন্যতম। প্রায় সব হলের ছাত্রছাত্রীরা সড়কটি ব্যবহার করে। তবে এই রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে আছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করা দুরূহ হয়ে পড়ে। এই সড়ক দিয়ে সারাক্ষণ রিকশা চলে। আর রিকশার কারণে চলাচলের সময় গর্তের পানি অনেক সময় গায়ে এসে লাগে। অথচ এই সড়ক সংস্কারে প্রশাসনের কোনো দৃশ্যমান উদ্যোগ নেই। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রকৌশলী আবদুস সালাম মো. শরীফ বলেন, আ ফ ম কামাল উদ্দিন হলের সামনে থেকে নতুন রেজিস্ট্রার ভবন পর্যন্ত সড়কটির বিষয়ে আমি রেজিস্ট্রার মহোদয়কে জানিয়েছি, তিনি ভিসি স্যারের সঙ্গে কথা বলেছেন। ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক মেরামতের পরিকল্পনা আছে। টাকা পেলে কাজ শুরু হবে। রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) রহিমা কানিজ বলেন, আমরা আ ফ ম কামালউদ্দিন হলের সামনের সড়ক মেরামতের উদ্যোগ নিয়েছি। এটা আমাদের বাজেটে ছিল না। এজন্য আমরা টাকার জন্য ইউজিসির কাছে প্রস্তাব পাঠাব। টাকা পেলে কাজ শুরু করব।

 

"