বিজিবি পাচ্ছে ২ হেলিকপ্টার

প্রকাশ : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) জন্য দুটি হেলিকপ্টার ক্রয়ে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

কমিটির সভাপতি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিদেশে থাকায় বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসা. নাসিমা বেগম এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, বৈঠকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে আসা জি-টু-জি পদ্ধতিতে দুটি হেলিকপ্টার ক্রয়ের প্রস্তাব নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, হেলিকপ্টার দুটি রাশিয়া থেকে কেনা হবে। এতে ব্যয় হবে ৩৫৫ কোটি ১০ লাখ টাকা। মূলত দুর্গম পার্বত্য এলাকায় নজরদারি বাড়াতেই হেলিকপ্টার কেনা হচ্ছে।

হেলিকপ্টার কেনার প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে, এমআই সিরিজের হেলিকপ্টারগুলো দুর্ঘটনায় পড়ার হার কম এবং বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর পাইলটরা এটির সঙ্গে বেশ পরিচিত। হেলিকপ্টারগুলো দুর্গম অঞ্চলে সৈনিক মোতায়েন, পণ্য পরিবহন, উদ্ধার তৎপরতা এবং দুর্গম এলাকায় নজরদারি বাড়াতে ব্যবহার হবে।

জানা গেছে, গত নভেম্বরে বিজিবির জন্য জি-টু-জি পদ্ধতিতে রাশিয়া থেকে দুটি হেলিকপ্টার কেনার প্রস্তাবে নীতিগত অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর এমআই ১৭১এসএইচ (মিলিটারি ভার্সন) পরিবর্তে এমআই ১৭১ই (সিভিল ভার্সন) হেলিকপ্টার সরবরাহ করতে রাশিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে আলোচনা হয়।

জেএসসি রাশিয়ার হেলিকপ্টার কোম্পানি এ দুটি হেলিকপ্টার চালানোর জন্য কারিগরি সহযোগিতা দেবে। হেলিকপ্টারের গতি হবে সর্বোচ্চ ২৫০ কিলোমিটার, ফ্লাইট সার্ভিস সিলিং হবে ৬০০০ মিটার এবং ওজন হবে ১৩ হাজার কেজি। এসব হেলিকপ্টারে একজন স্টুয়ার্ডসহ ২৬ যাত্রী পরিবহন এবং বেল্টে ঝুলিয়ে পণ্য পরিবহনের সুবিধা আছে।

 

"