প্রথম কলাম

শখের জামা জুতোও ঠিক হবে!

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

আপনার শখের জামাটা অনেকদিন পরা হয় না। আজ পরবেন বলে বের করলেন আলমারি থেকে। দেখলেন একটা দাগ। পরার মতো উপায় নেই। কিংবা জিন্স প্যান্টের জিপারটা গেছে নষ্ট হয়ে। এরকম পরিস্থিতিতে শখের জামা কিংবা জুতো নিয়ে দুঃখ হয় বৈকি। তবে আছে ঠিক করার পন্থাও। জীবনযাপন-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে এই বিষয়ের ওপর প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এমন কিছু পন্থা এখানে দেওয়া হলো।

জিপার ঠিক করা : এক পাশ থেকে খুলে যাওয়া চেইন বা জিপার খুব সহজে ঠিক করা যায়। এর জন্য চাই একটা কাঁচি, সুচ আর সুতা। চেইনের সøাইডারটি নিচের দিকে নিয়ে যান। যে পাশের চেইন থেকে স্লাইডারটি খুলে গেছে সে পাশে সøাইডারের ওপরে জিপারের দুটি দাঁতের মাঝে সামান্য কেটে একটা দাঁত বের করে নিন। এবার খুলে যাওয়া চেইনের অংশে সøাইডারটি ঢুকিয়ে নিন। তারপর সøাইডার ওপরে তুলে চেইন লাগান। কাটা অংশটা ঠিক মতো সেলাই করে নিন। এতে বার বার চেইন লাইন থেকে খুলে যাবে না।

চামড়ার জুতোয় স্যাঁতস্যাঁতে দাগ : এর জন্য চাই নরম ব্রাশ বা স্পঞ্জ, পানি ও ভিনিগার। দৃশ্যমান দাগ মুছে নিন। স্পঞ্জ বা টুথব্রাশ সমপরিমাণ পানি ও ভিনিগারের মিশ্রণে ডুবিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানটি হালকাভাবে মুছে নিন। সূর্যের আলোতে জুতো শুকিয়ে নিন। মনে রাখবেন জীবাণু আপনাকেও অসুস্থ করে ফেলতে পারে। তাই পরিষ্কার করার সময় অবশ্যই মাস্ক পরে নেবেন।

এ ছাড়া চামড়ার জুতো নতুনের মতো চকচকে করতে সামান্য গ্লাস ক্লিনার, দুই টুকরা নরম কাপড় এবং পুরনো পাতলা টুথব্রাশ প্রয়োজন। কাপড়ে গ্লাস ক্লিনার স্প্রে করে জুতোটা মুছে নিন। জুতোর সেলাই বা অন্য সামগ্রী আছে এমন স্থান পরিষ্কার করতে ব্রাশ ব্যবহার করুন। কারণ কাপড় এই অংশে পৌঁছাবে না। এবার শুকনা কাপড় দিয়ে জুতো মুছে নিন। প্রয়োজনে আবার এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন। অনেক চামড়া গ্লাস ক্লিনারে নষ্ট হয়ে যায় তাই প্রথমে জুতোর ভেতরের অংশে ব্যবহার করে তা যাচাই করে নিন।

কাপড় থেকে পুরনো দাগ তুলতে প্রয়োজন হেয়ার স্প্রে ও স্টিফ ব্রাশ। রংয়ের ওপর হেয়ার স্প্রে এমনভাবে লাগান যেন তা একেবারে ভিজে যায়। কয়েক মিনিট অপেক্ষা করে ব্রাশ বা কাপড়ের সাহায্যে তা পরিষ্কার করে নিন। এতে পুরনো রঙের দাগ উঠে আসবে। বেশিরভাগ রং উঠে আসলে তা ধুয়ে নিন। এতে বাড়তি রঙের দাগও উঠে যাবে।

ছেঁড়া ফাটা দূর করতে সুই ও কাপড়ের সঙ্গে মিলিয়ে সুতা দরকার। কাপড়ের উল্টাপাশ থেকে সেলাই করতে হবে। ছেঁড়া অংশটা ধরে তার উল্টা পাশের দুই প্রান্তে বিপরীত মুখী সেলাই করে সুতার সাহায্যে ছেঁড়া অংশটি পূর্ণ করে নিন।

 

লবণ ও সাদা ভিনিগার বা লেবু দিয়ে কাপড়ে পড়া মরিচার দাগ দূর করা যায়। সমপরিমাণ লবণ ও সাদা ভিনিগার বা লেবুর রস দাগের ওপরে সরাসরি লাগান। ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকানোর জন্য রোদে দিন যতক্ষণ না দাগ হালকা হয়ে আসে। এরপর তা সাধারণভাবেই ধুয়ে ফেলুন।

মরিচার দাগ অনেক কড়া হয়। সহজে যেতে চায় না। তাই আবার একই পদ্ধতি অনুসরণ করার প্রয়োজন হতে পারে। কয়েকবার করার পরও যদি দাগ না ওঠে তাহলে রোদে শুকানোর আগে গরম পানিতে কাপড়টি ফুটিয়ে নেবেন।

কালি বা স্থায়ী মার্কারের দাগ তুলতে ভালো উপায় অ্যাসিটোন। অনেক তন্তু অ্যাসিটোনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই আগে কাপড়ের অন্য অংশে লাগিয়ে যাচাই করতে হবে। যদি কাপড়ে এটা ব্যবহার করা না যায় তাহলে রাবিং অ্যালকোহল ব্যবহার করতে পারেন। পানি দিয়ে কাপড়ে লাগা দাগ ভিজিয়ে নিন। শক্ত পাটাতনে পুরানো তোয়ালে বিছান, যেমন- টেবিলের ওপরে তোয়ালে বিছিয়ে তার ওপরে দাগ লাগা কাপড়টি রাখুন। অ্যাসিটোন বা রাবিং অ্যালকোহল দাগের ওপরে দিন। তোয়ালে দাগ শুষে নিবে এরপর কাপড়টা ধুয়ে নিন। দাগ পুরোপুরিভাবে তুলতে প্রয়োজন হলে আরো কয়েকবার এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

"