কলকাতা-কুনমিং বুলেট ট্রেন চলবে বাংলাদেশ হয়ে!

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সড়ক, রেল ও জলপথে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে একাধিক পরিকল্পনা নিয়েছে চীন। এরই অংশ হিসেবে দেশটির ইউনান প্রদেশের কুনমিং থেকে মিয়ানমার ও বাংলাদেশ হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা পর্যন্ত বুলেট ট্রেন পরিসেবা চালুর পরিকল্পনা করছে দেশটি। গত বুধবার কলকাতায় ভারত ও চীনের মধ্যকার বাণিজ্যিক সম্পর্ক ও বিনিয়োগ-সংক্রান্ত এক সভায় চীনের কনসাল জেনারেল মা ঝানউ তার দেশের এই পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। খবর এনডিটিভির। ঝানউ জানান, চীন ও ভারতের যৌথ উদ্যোগে এই রেল পরিসেবা চালু করতে ইচ্ছুক তারা। এই পরিসেবা চালু হলে মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কলকাতা থেকে কুনমিং পৌঁছে যাওয়া যাবে। তিনি আরো বলেন, তার মনে হয় এই রেলসেবা চালু হলে শুধু ভারত বা চীন নয়, একই সঙ্গে লাভবান হবে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারও। এ ছাড়া ২ হাজার ৮০০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই রেলপথ তৈরি হলে এসব অঞ্চলে শিল্পায়নের সম্ভাবনাও বাস্তবায়িত হবে। অবশ্য ২০১৫ সালেই এ রকম একটি খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। সে সময় কুনমিং শহরে গ্রেটার মেকং সাবরিজিয়নের (জিএমএস) একটি বৈঠক হয়। সেখানে চীনের উদ্যোগে শুরু হওয়া বাংলাদেশ-চীন-ভারত-মিয়ানমার (বিসিআইএম) মাল্টি-মডেল করিডোর প্রকল্পের অন্তর্গত এই রেলপথের প্রসঙ্গ ওঠে। এই প্রকল্পের বিপুল খরচ মেটাতে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকসহ (এডিবি) আরো কয়েকটি বহুজাতিক আর্থিক সহায়তা প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসবে বলেও জানিয়েছিল চীন। তিনি বলেন, এই রেলপথের লক্ষ্য হবে বিসিআইএম (বাংলাদেশ-চীন-ভারত-মিয়ানমার) করিডোরে আন্তবাণিজ্য বাড়ানো। আর কলকাতা থেকে কুনমিং পর্যন্ত ইতিহাসের সেই সিল্ক রুট পুনরুদ্ধারে চীন বদ্ধপরিকর। কলকাতায় চীনের কনসাল জেনারেল এই বলে আশ্বস্ত করেন যে, তার দেশের আলোচিত ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড’ পরিকল্পনা বিশ্বজয়ের বা প্রতিবেশীদের দখল করার পরিকল্পনা থেকে নেওয়া হয়নি। ঝানউয়ের ভাষায়, এই পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে যাতে আলোচনা আর পারস্পরিক পরামর্শের মাধ্যমে সবারই লাভবান হওয়ার সুযোগ তৈরি করা যায়।

"