চট্টগ্রামে দুর্বৃত্তের হামলায় প্রহরী নিহত : আহত ৩

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানাধীন সরকারি বনে অবৈধ বসতি উচ্ছেদ করতে গিয়ে দুর্বৃত্তদের হামলায় আবদুচ ছালাম (৫০) নামের এক বনপ্রহরী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আবুল কালাম আজাদ, মো. মামুন ও ছাদেক নামের আরো তিন বনপ্রহরী আহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে ভুজপুর থানাধীন দাঁতমারা ইউনিয়নের চুরামনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, হাসনাবাদ বিটের আওতাধীন সরকারি সংরক্ষিত বন বাগান উজাড় করে সেখানে অবৈধ পাকা বসতি নির্মাণ করা হচ্ছিল। বুধবার সকালে সেখানে অবৈধ বসতি উচ্ছেদ করতে যায় হাসনাবাদ ও তারাখোঁ বিটের কর্মকর্তা কর্মচারীরা। এ সময় অবৈধ বসতি নির্মাণকারীরা বাধা দেয়। এক পর্যায়ে ২০ থেকে ৩০ নারী-পুরুষ সংঘবদ্ধ হয়ে বন কর্মীদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। নির্মাণাধীন ঘরের একটি দেয়ালের কিছু অংশ ভাঙার পর অবস্থা বেগতিক দেখে বন কর্মীরা উচ্ছেদ না করে ফেরত আসার সময় তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এ সময় মনুয়ারখীল বাজারে সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি লাঠির আঘাতে বনপ্রহরী আবদুচ ঘটনাস্থলে নিহত হন। আহত হয়েছেন বনপ্রহরী আবুল কালাম আজাদ, মো. মামুন ও ছাদেক। তাদের মধ্যে ছাদেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান বিট কর্মকর্তা আতিকুল্লাহ।

চট্টগ্রাম উত্তর বন বিভাগের নারায়ণ রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, স্থানীয় চেয়ারম্যান জানে আলমের বিরুদ্ধে গত কিছুদিন আগে একটি বন মামলা হয়। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে রেঞ্জ কর্মকর্তাসহ বন বিভাগের কর্মকর্তাদের গণপিটুনি দিয়ে মারবেন বলে হুমকি দিয়েছিলেন। তবে চেয়ারম্যান বেশ কয়েকবার এ ধরনের পরিকল্পনা করে ব্যর্থ হয়।

তিনি বলেন, এর আগে চেয়ারম্যানের দখল থেকে বনবিভাগের বিপুল পরিমাণ জায়গা উদ্ধার করেন চট্টগ্রাম উত্তর বনবিভাগের সাবেক বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আবদুল ওয়াদুদ স্যার। আমাদের ধারণা, এসব ঘটনার জের ধরে চেয়ারম্যান এ ঘটনায় ইন্ধন দিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চেয়ারম্যান জানে আলমের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। অন্যদিকে, উচ্ছেদ করা ঘরের মালিক নজিরুল জানান, পুরনো ঘরের বারান্দা বাড়াতে গেলে হাসনাবাদ বিট কর্মকর্তা আতিক ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। এরপর আতিক এবং অন্য দুই স্টাফকে ১৫ হাজার টাকা দেন নজিরুল। বাকি টাকা না দেওয়ায় বনকর্মীরা ঘর ভেঙে দিতে যায় দাবি করে নজিরুল আরো বলেন, হত্যার ঘটনায় তার পরিবার জড়িত নয়। এদিকে, ভুজপুর থানার ওসি মো. বায়েছ আলম বলেন, দখলদাররা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বনকর্মীদের ওপর হামলা করলে একজন বনপ্রহরী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে। কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। ইতোমধ্যে গ্রেফতারে অভিযান শুরু হয়েছে।

"