বাস চলাচল শুরু সারা দেশে স্বস্তি

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

তিন দিন বন্ধ থাকার পর রাজধানীসহ সারা দেশে বাস চলাচল শুরু করেছে। ছেড়েছে দূরপাল্লার পরিবহনও। ফলে সড়ক ব্যবস্থা ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। তবে যাত্রীর চেয়ে বাস কম হওয়ায় ভোগান্তিও ছিল। গতকাল সোমবার সকাল থেকে বাস চলাচল শুরু হলেও তা সীমিত আকারে। বাসে উঠতে রীতিমতো যুদ্ধে শামিল হতে হয়েছে নগরবাসীর। উপায় না পেয়ে অনেককে ট্রাকে করেও চলাচল করতে দেখা গেছে। গত কয়েক দিনে রিকশা ও অটোরিকশায় বাড়তি ভাড়া গোনা, যানবাহন সংকটে পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যাওয়াসহ বিভিন্ন ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ যাত্রীদের। নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ ছিল। গতকাল সকালে রাজধানীর বাড্ডা, রামপুরা, মালিবাগ, মৌচাক, মগবাজার, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ, পল্টন, গুলিস্তান, সায়েন্সল্যাব, নিউমার্কেট ও আজিমপুর এলাকায় গণপরিবহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

এছাড়া সায়েদাবাদ, যাত্রাবাড়ী, মহাখালী, শ্যামলী ও গাবতলী থেকেও গণপরিবহন ছেড়েছে। পাশাপাশি দূরপাল্লার বাসও ছেড়ে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বিভিন্ন জেলায়ও বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

গণপরিবহন চলাচল শুরু ব্যক্তি মালিকানাধীন গণপরিবহনের পাশাপাশি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) বাস বের হয়েছে বলে বিআরটিসি ডিপো সূত্র জানিয়েছে।

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম বলেন, সড়ক নিরাপদ রয়েছে এমন আশ্বাসে নিশ্চিত হয়ে সড়কে গাড়ি নামিয়েছি। আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল থেকেও দূরপাল্লার গাড়ি ছাড়ছে। সকাল থেকে যাত্রীর চাপ রয়েছে।

মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক বলেন, মহাখালী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল থেকে ভোর ৫টায় বাস চলাচল শুরু হয়েছে। ভোর থেকে যাত্রীরা আসছেন। ভরে গেলেই গাড়ি ছেড়ে যাচ্ছে। অন্যান্য জেলা থেকেও ঢাকার পথে আসছে গাড়ি।

আমাদের ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

চট্টগ্রাম ব্যুরো : নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের কারণে নিরাপত্তার নামে পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিলো চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। এর মাধ্যমে জনভোগান্তি থেকে মুক্তি পেল চট্টগ্রামবাসী।

চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে অনির্দিষ্টকালের জন্য গাড়ি চলাচল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। পরে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুসারে গাড়ি চলাচল শুরু করেছে। গতকাল সকাল থেকে নগরের বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, চকবাজার, ২ নম্বর গেট, কালুরঘাট, আন্দরকিল্লা, নিউমার্কেট, কাজির দেউরি, অক্সিজেন মোড়, শাহ আমানত সেতুসহ বিভিন্ন এলাকায় গণপরিবহন চলাচল করেছে। বিভিন্ন কাউন্টার থেকে দূরপাল্লার বাস ছেড়েছে। তবে অটোরিকশা, প্রাইভেট কার, রিকশাসহ বিভিন্ন যান চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও গণপরিবহনের সংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেকাংশে কম।

রাজশাহী ব্যুরো : টানা তিন দিন দুর্ভোগের পর অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল সকাল থেকে দূরপাল্লা ও আন্তঃজেলার বাসগুলো ছেড়ে যায়।

রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মনজুর হোসেন জানান, রোববার রাতে ঢাকা বাস মালিক সমিতি থেকে সিদ্ধান্ত আসায় সকাল থেকে বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

রংপুর ব্যুরো : : রংপুর থেকে ঢাকাগামী বাস চলাচল শুরু হয়েছে। এতে যাত্রীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। রংপুর নগরীর কামারপাড়া এলাকা থেকে ঢাকা কোচ স্ট্যান্ড থেকে বেশ কয়েকটি বাস ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে। তবে বাস চলাচল শুরু হওয়ার খবর অনেকেই জানতে না পারায় যাত্রী সংখ্যা অনেক কম।

এশা ট্র্যাভেলসের কাউন্টার ম্যানেজার সাজ্জাদুর রহমান বাপ্পি জানান, গাড়ি চলাচল শুরু হয়েছে। সকালে ঢাকার উদ্দেশে একটি বাস ছেড়ে গেছে।

সিলেট : শ্রমিক ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিয়েছে বাস মালিক শ্রমিক সমিতি। ফলে লাঘব হলো যাত্রী ভোগান্তির। গতকাল সকাল থেকে সিলেটে আন্তঃজেলা বাস চলাচল শুরু হয়েছে। সে সঙ্গে আঞ্চলিক সড়কেও যানবাহন চলাচল শুরু হওয়া যাত্রী ভোগান্তির লাঘব হয়েছে।

সিলেট সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, ছাত্ররা আজকে থেকে আন্দোলনে নামবে না ঘোষণা দেওয়াতে আমরা গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বরিশাল : বরিশালের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল্লাবাদ ও রুপাতলী মিনিবাস টার্মিনাল থেকে গতকাল বাস ছেড়ে গেছে। নতুল্লাবাদ থেকে যথানিয়মে প্রতিদিনের মতো অভ্যন্তরীণ রুটে সকাল থেকে বাস চলাচল স্বাভাবিক ছিল। তবে মালিক সমিতির পূর্ববিরোধের জের ধরে সকালে বরিশাল থেকে ঝালকাঠির উদ্দেশ্যে যাত্রী নিয়ে রওনা বাসগুলো ফেরত পাঠিয়েছে ঝালকাঠি মালিক ও শ্রমিক সমিতির নেতারা। তাই বরিশাল থেকে ঝালকাঠিসহ ৮ রুটে বাস চলাচল বন্ধ ছিল বলে জানিয়েছেন রুপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের লাইন সম্পাদক মো. সেলিম।

বেনাপোল (যশোর) : আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার পরিবহন চলাচল শুরু করেছে। এতে ভারত থেকে আসা পাসপোর্টযাত্রীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। গন্তব্যে যেতে পেরে খুশি যাত্রীরা।

বেনাপোলের সোহাগ পরিবহনের ম্যানেজার সহিদুল ইসলাম জানান, সকাল থেকেই ঢাকাগামী বাসগুলো যাত্রী নিয়ে রওনা দিয়েছে। লোকাল বাস টার্মিনাল থেকেও অভ্যন্তরীণ রুটে বাস ছেড়েছে।

বেনাপোল সড়ক পরিবহন সংস্থার লাইন সম্পাদক মনির হোসেন জানান, ১২ রুটে দূরপাল্লার ও আন্তঃজেলার সব যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম জানান, বাস চলাচল শুরু হওয়ার খবর পেয়ে ভারত থেকে আসা পাসপোর্ট যাত্রীর চাপ বেড়েছে। ঈদ সামনে রেখে অনেকে ফিরে আসছে।

গত ২৯ জুলাই ঢাকায় বাসচাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর রাজপথ অচল করে টানা আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। তাদের বিক্ষোভের মধ্যে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরের শিকার হয়। এই পরিস্থিতিতে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে সারা দেশে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় মালিক-শ্রমিকরা। বিভিন্ন স্থানে পরিবহন শ্রমিকদের সড়কে অবস্থান নিয়ে গাড়ি আটকাতেও দেখা যায়। ফলে যাত্রীদের পড়তে হয় ভোগান্তিতে।

"