ভল্টের সোনা নিয়ে কথা বিএনপির মুখে মানায় না : কাদের

প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রাখা সোনা নিয়ে কথা বলা বিএনপি নেতাদের মুখে শোভা পায় না। কারণ বিএনপির নেতারা আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা দেওয়ার স্থান পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে বলেছেন, ‘সরকার দেশের অর্থনীতি ফোকলা করে দিচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভল্টে অনিয়ম তার প্রমাণ।’ বিএনপির মহাসচিবের এ মন্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অনেক কথাই বলবেন। কারণ বিএনপির নেতারা আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ। বিএনপির গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা তুলে দেওয়ার পর তাদের মুখে এটি (ভল্টের সোনা নিয়ে কথা) শোভা পায় না। তাদের মুখে অন্যকে দুর্নীতিবাজ বলা শোভা পায় না।’ তিনি বলেন, ‘তদন্তে কোনো অপকর্ম বেরিয়ে এলে তাতে কঠিন শাস্তি পেতে হবে। শেখ হাসিনা সরকারের আমলে এ ধরনের অপকর্ম করার কোনো সুযোগ নেই।’

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের সোনা বিষয়ে যদি ভেতরে কোনো অনিয়ম হয়ে থাকে সেটা সুষ্ঠু তদন্ত হবে। যদি তদন্তে কারো অপকর্ম করার বিষয় বেরিয়ে আসে তাহলে তাকে কঠিন শাস্তি পেতে হবে।’

তিন সিটি নির্বাচন বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পাল্টাপাল্টি বক্তব্যটাই হচ্ছে গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। কথা হচ্ছে, পাল্টাপাল্টি বক্তব্য ঠিক আছে, সুস্থ বক্তব্য ঠিক আছে, গণতন্ত্রের ভাষায় কথা বলা ঠিক আছে। গণতন্ত্রের ভাষায় কথা বলাটাই গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। কিন্তু আজ আমাদের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিএনপি বলছে, দেশে গণতন্ত্র নেই। অবিরাম অগণতান্ত্রিক ভাষায় তারা বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে। অগণতান্ত্রিক ভাষায় শেখ হাসিনার সরকারকে, শেখ হাসিনাকে প্রতিনিয়ত বিএনপি আক্রমণ করে যাচ্ছে। অগণতান্ত্রিক ভাষায় যারা কথা বলে, তাদের মুখে কি গণতন্ত্রের বুলি মানায়?’

এ সময় সেখানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

"