প্রথম কলাম

‘বিজেপি ক্ষমতায় এলে ভারত হবে হিন্দু পাকিস্তান’

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

কংগ্রেস নেতা শশী থারুরের ‘হিন্দু পাকিস্তান’ মন্তব্যে বেজায় চটেছে ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। শশীর এই মন্তব্যের জন্য কংগ্রেসের প্রধান রাহুল গান্ধীকে পর্যন্ত ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বিজেপি। বিজেপি ২০১৯ সালে আবার ক্ষমতায় এলে ভারতকে ‘হিন্দু পাকিস্তান’ বানাবে- নিজের দেওয়া ওই মন্তব্যে শশী থারুর অনড় আছেন বলে এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘কেন আমি এই বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইব? বিজেপি হিন্দু রাষ্ট্রের আদর্শ ধারণ করে।’

গত বুধবার শশী থারুর কেরালায় এক অনুষ্ঠানে ‘ভারতীয় গণতন্ত্র এবং ধর্মনিরপেক্ষতা হুমকির মুখে’ শীর্ষক ভাষণ দেন। সেখানে তিনি বলেন, বিজেপি যে নীতিতে চলছে তা মহাত্মা গান্ধী, নেহরু, সরদার প্যাটেল, মাওলানা আজাদ বা ভারতের স্বাধীনতার কোনো যোদ্ধার পথ নয়। সেখানেই তিনি একপর্যায়ে বলেন, ভয়াবহ বিপদ। বিজেপি লোকসভার বর্তমান শক্তি নিয়ে আবারও ক্ষমতায় এলে নতুন করে সংবিধান করবে, যেটা হিন্দু রাষ্ট্রের আদর্শ ধারণ করবে। সংখ্যালঘুদের জন্য সমতা তুলে দেওয়া হবে, এভাবে ভারতকে হিন্দু পাকিস্তান বানানো হবে। আমাদের মহান নেতারা এমন ভারতের জন্য স্বাধীনতা সংগ্রাম করেননি।

বিতর্ক শুরুর পরিপ্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার সকালে শশী থারুর তার ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেখানে তিনি এই বিতর্ককে ‘বিস্ময়কর অপব্যাখ্যা’ বলে অভিহিত করেন। তিনি ওই ফেসবুক স্ট্যাটাসে নিজের বক্তব্যের যুক্তি তুলে ধরে বলেন, বিজেপি-আরএসএসের হিন্দু রাষ্ট্রের ধারণাটাই পাকিস্তানের প্রতিরূপ। পাকিস্তানেও সংখ্যালঘুরা নিগৃহীত হচ্ছে। আর ভারতেও বিজেপি-আরএসএস দ্বারা সংখ্যালঘুরা নিগৃহীত হচ্ছে। শশী থারুর এনডিটিভিকে বলেন, বিজেপি বা নরেন্দ্র মোদির মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। তাদের নীতিতে কোনো পরিবর্তন নেই।

এদিকে শশী থারুর এমন বক্তব্যের জন্য কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর অবিলম্বে ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে টুইট করেছেন বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র। তিনি বলেন, পাকিস্তান তৈরির দায় কংগ্রেসেরই। সুযোগ পেলে ভারত ও ভারতের হিন্দুদের অপমান করার কোনো সুযোগই কংগ্রেস হাতছাড়া করে না।

"