কালীগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার বস্তাবন্দি পোড়া লাশ

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

নিখোঁজের তিন দিন পর গাজীপুরের কালীগঞ্জের জঙ্গল থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পুলিশ কর্মকর্তা মামুন ইমরান খানের (৪২) বস্তাবন্দি পোড়া লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের রায়েরদিয়া ধলাবাড়ীর টেকের জঙ্গল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মামুন ইমরান খান ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার রাজরামপুর গ্রামের আজহার আলী খানের ছেলে। তিনি এসবি স্কুলের পরিদর্শক ছিলেন। গত রোববার সন্ধ্যার পর রাজধানীর সবুজবাগ এলাকা থেকে নিখোঁজ হন মামুন ইমরান খান। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবু বকর মিয়া জানান, স্থানীয়রা দুপুরে উপজেলার রায়েরদিয়া রাস্তার পাশের একটি জঙ্গলে বস্তাবন্দি মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। পরে তারা স্থানীয় উলুখোলা পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়। পরে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। মরহেদটি আগুনে পোড়ানো এবং চেহারা বিকৃত ছিল। এজন্য বয়স ও পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি। তবে বিকেলে নিহতের পরনের প্যান্ট ও কোমরের বেল্ট দেখে পরিবারের লোকজন পরিচয় শনাক্ত করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, স্থানীয় ছেলেমেয়েরা লাকড়ি সংগ্রহ করতে গিয়ে জঙ্গলের ভেতর আগুনে পোড়া একটি লাশ দেখেতে পেয়ে চিৎকার করে। পরে তাদের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুনে পোড়া অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের লাশ দেখতে পায়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি পুলিশকে জানায়।

খবর পেয়ে উলুখোল ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম মাওলা ঘটনাস্থলে যান। পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম সবুর, কালীগঞ্জ-কাপাসিয়া সার্কেল এসপি পংকজ দত্ত, ওসি আবু বকর মিয়া, পরিদর্শক (তদন্ত) তারিকুল ইসলাম, ঢাকার মালিবাগের স্পেশাল ব্রাঞ্চের ওসি সৈয়দ নাসেরসহ পুলিশের বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ বিষয়ে গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেন, দুর্বৃত্তদের ধরতে অভিযান চলছে। হত্যাকারী যেই হোক তাদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।

"