রাসিক নির্বাচন

আ.লীগ প্রার্থীর সমর্থনে সরে দাঁড়ালেন জাপার দোলন

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

রাজশাহী ব্যুরো

রাজশাহী সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনকে সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়িয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) ওয়াসিউর রহমান দোলন। গতকাল শনিবার সকালে রাজশাহী নির্বাচন কার্যালয়ে গিয়ে রিটার্নিং অফিসার সৈয়দ আমিরুল ইসলামের কাছে গিয়ে তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। ফলে এই নির্বাচনে ছয় প্রার্থীর মধ্যে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

এদিকে রাজশাহী চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ভবনে খায়রুজ্জামান লিটনের হাতে ফুলের তৈরি নৌকা উপহার দিয়ে তাকে সমর্থন দেন জাতীয় পার্টির নেতারা। এ সময় ওয়াসিউর রহমান দোলন বলেন, পার্টির চেয়ারম্যানের নির্দেশে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে তার পক্ষে কাজ করবেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, জাতীয় পার্টির সমর্থন দেওয়ার মধ্য দিয়ে আমরা জয়ের পথে অনেক দূর এগিয়ে গেলাম। আগামীতে আমরা কাঁধে কাঁধ রেখে সবাই একসঙ্গে রাজশাহীর উন্নয়নে কাজ করব। বড় বড় প্রকল্প এনে রাজশাহীকে মেগা সিটি হিসেবে গড়ে তোলা হবে। লিটন আরো বলেন, বাংলাদেশ আজ দুইভাগে বিভক্ত। এর মধ্যে বৃহত্তম অংশ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের। আজ কিছু অংশ আছে যারা বিএনপি-জামায়াত। রাজশাহীতেও তারা আছে। তাদের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি শাহাবুুদ্দিন বাচ্চু বলেন, আমরা উন্নয়ন ছাড়া কিছুই বুঝি না। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে কেন্দ্রের নির্দেশে লিটন ভাইকে সমর্থন দিয়েছি। আমাদের নেতাকর্মীরা আজ থেকে লিটন ভাইয়ের পক্ষে কাজ করবেন।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী ও সদ্য বিদায়ী মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সমালোচনা করে শাহাবুদ্দিন বাচ্চু বলেন, বুলবুল মানুষের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এবার বুলবুলকে বিএনপির লোকরাই ভোট দেবে না। কারণ মানুষ সচেতন হয়েছে। তারা জানে কাকে ভোট দিলে উন্নয়ন হবে। বিএনপির লোকজন বলছে, এবার তারা খায়রুজ্জামান লিটনকে ভোট দেবেন।

রাজশাহী মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন মিন্টুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, জাতীয় পার্টি রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ডালিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম শাহীন প্রমুখ। এ সময় মহানগর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন এই জাতীয় পার্টি নেতাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছিলেন পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। এরপর ওইদিনই নির্বাচন কমিশন থেকে তার মনোনয়নপত্র তোলা হয়। যাচাই-বাছাই শেষে তার মনোনয়নপত্র বৈধ বলেও ঘোষণা করে স্থানীয় নির্বাচন কমিশন। তবে প্রতীক বরাদ্দের আগেই দোলন তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিলেন।

"