আত্মঘাতী গোলের বিশ্বকাপ

প্রকাশ : ২৩ জুন ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

চলছে গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। ব্রাজিল-কোস্টারিকার ম্যাচের মধ্য দিয়ে এবারের আসরের ২৪টি ম্যাচ শেষ হয়েছে। এই ২৪ ম্যাচের মধ্যে আত্মঘাতী গোল হয়েছে ৫টি। পেনাল্টি হয়েছে ১১টি। বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বোচ্চ পেনাল্টি হওয়ার রেকর্ড আছে ১৮টি। এবার গ্রুপ পর্বের ২৪ ম্যাচ পর্যন্তই হয়েছে ১১টি পেনাল্টি। তার অধিকাংশই এসেছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সহায়তায়। তবে আত্মঘাতী গোলের বিষয়টি সব সময়ই বেদনাদায়ক। কখনো কখনো ভয়ঙ্কর বিষয়ও। বিশ্বকাপে আত্মঘাতী গোল করে দেশে ফেরার পর হত্যার শিকার হয়েছেন এমন ঘটনাও রয়েছে। তাই এবারের আলোচনা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাশিয়া বিশ্বকাপে হওয়া পাঁচটি আত্মঘাতী গোল নিয়ে।

প্রথম গোল : এবারের বিশ্বকাপের প্রথম আত্মঘাতী গোলটি হয়েছে ১৫ জুন মরোক্ক ও ইরানের মধ্যকার ম্যাচে। ম্যাচের যোগ করা সময়ে মরোক্কের আজিজ বৌহাদদৌজ ফ্রি কিক থেকে উড়ে আসা বল হেড দিয়ে ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালে জড়িয়ে দেন। তাতে মরোক্কো হেরে যায় ১-০ গোলে। আর ইরান ২০ বছর পর বিশ্বকাপে জয় পায়।

দ্বিতীয় গোল : দ্বিতীয় আত্মঘাতী গোলটি হয়েছে ১৬ জুন ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ম্যাচে। ৮০ মিনিট পর্যন্ত ফ্রান্সের বিপক্ষে সমতা নিয়ে লড়াই করছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু ম্যাচের ৮১ মিনিটে ডি বক্সের মধ্য থেকে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালে পাঠিয়ে দেন আজিজ বেহেচি। অবশ্য আত্মঘাতী এই গোলটি ফ্রান্স পেয়েছে গোললাইন প্রযুক্তির সহায়তায়। ওই গোলটি না হলে ফ্রান্সের মতো শক্তিশালী একটি দলের বিপক্ষে ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারত অস্ট্রেলিয়া।

তৃতীয় গোল : এবারের বিশ্বকাপের তৃতীয় আত্মঘাতী গোলটি হয়েছে ১৬ জুন নাইজেরিয়া বনাম ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচে। শুরু থেকেই ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করছিল নাইজেরিয়া। কিন্তু ম্যাচের ৩২ মিনিটে পিছিয়ে পড়ে তারা। এবং সেটা আত্মঘাতী গোলে। এ সময় নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার ইতেবোর পেনাল্টি বক্সের মধ্যে পা লাগিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন। তাতে পিছিয়ে পড়ে নাইজেরিয়া। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলে হেরে যায় তারা।

 

চতুর্থ গোল :

চতুর্থ গোলটি হয়েছে ১৯ জুন পোল্যান্ড-সেনেগালের ম্যাচে। ৩৭ মিনিটের সময় সেনেগালের ইদ্রিসা গানার নেওয়া একটি শট পোল্যান্ডের ডিফেন্ডার থিয়াগো সিউনিকের পায়ে লেগে গতিপথ পরিবর্তন করে জালে আশ্রয় নেয়। শেষ পর্যন্ত পোল্যান্ড এই ম্যাচে হার মানে ২-১ ব্যবধানে।

 

পঞ্চম গোল :

এবারের আসরের পঞ্চম আত্মঘাতী গোলটি হয়েছে একই দিন রাশিয়া মিসরের খেলায়। প্রথমার্ধ গোলশূন্যভাবে শেষ হয়। কিন্তু ৪৭ মিনিটের সময় পিছিয়ে পড়ে মিসর। এ সময় রাশিয়ার রোমান জবনিনের নেওয়া শট আচমকা মিসরের অধিনায়ক আলি ফাতহির পায়ে লেগে দিক পরিবর্তন করে নিজেদের জালে বল চলে যায়। এরপর আরো দুটি গোল করে রাশিয়া। আর মিসর হেরে যায় ৩-১ ব্যবধানে।

"