জ্যোতিষী বিড়াল অ্যাকিলিস!

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

জ্যোতিষী অক্টোপাস পলের কথা মনে আছে? ২০১০ দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল, ফাইনালসহ প্রায় প্রতিটি ম্যাচের সঠিক ভবিষ্যদ্বাণী করে সাড়া ফেলে দিয়েছিল যে জার্মান অক্টোপাসটি!

২০১৪ বিশ্বকাপে অবশ্য আনুষ্ঠানিক কোনো ভবিতব্য নির্দেশক নির্ধারণ করা হয়নি। যদিও ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত আসরে কখনো উট, কখনো হাতি কিংবা কখনো কচ্ছপ আর গিনিপিগকে দিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করতে দেখা গেছে ফুটবলপ্রেমীদের। তবে এক আসর পর ফের বিশ্বস্ত জ্যোতিষীর সন্ধান মিলেছে। রাশিয়ার ফুটবল মহাযজ্ঞে ম্যাচের ‘ভাগ্যলিপি’ লেখবে একটি বেড়াল! ‘অ্যাকিলিস দ্য ক্যাট’ নামের এ বেড়ালটিই এবার অক্টোপাস পলের উত্তরসূরি হয়ে ধরা দেবে। ২০১৮ বিশ্বকাপ আয়োজক কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে এই ‘বধির’ বেড়ালটিকে ভবিষ্যৎ দ্রষ্টার স্বীকৃতি দিয়েছে। মায়াবী নীল চোখ আর তুষারশুভ্র লোমশ বেড়ালটির বসবাস রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গের হার্মিটেজ জাদুঘরে। গ্রিক পুরানের বিখ্যাত চরিত্র অ্যাকিলিসের নামে এর নামকরণ করা হয়েছে।

অক্টোপাস পলকে পানির মধ্যে খাবার দেওয়া হতো। সেখানে দুটি খাবার বক্সের একটিতে এক দেশ, অন্যটিতে আরেক দেশের পতাকা দিয়ে মার্কা দেওয়া থাকত। পল যে বক্সের খাবার বেছে নিত, সেই দলকেই বিজয়ী ধরে নেওয়া হতো।

এবারও সেই একই নিদর্শন। শুধু বক্সের বদলে অ্যাকিলিসের খাবার রাখা হবে দুটি বাটিতে। তাতে বিশ্বকাপে লড়তে চলা প্রতিপক্ষ দুই দেশের পতাকা জুড়িয়ে দেওয়া হবে। দলের তালিকা ও ম্যাচের সূচির সঙ্গে অভ্যস্ত হতে বেশ আগে থেকেই অনুশীলন শুরু করেছে অ্যাকিলিস। গেল কয়েক মাসে মুটিয়ে গিয়েছিল সে। ওজন কমাতে তাই ব্যায়ামও করতে হয়েছে তাকে। অ্যাকিলিসের প্রতিপালক পশু চিকিৎসক আনা কাসাতকিনা। হার্মিটেজ জাদুঘরের সব রক্ষী বেড়ালদের তিনিই দেখভাল করেন। অ্যাকিলিসের পারফরম্যান্স নিয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাসী তিনি, ‘জ্যোতিষী হিসেবে আমরা ওকেই (অ্যাকিলিসকেই) বেছে নিয়েছি। কারণ ও দেখতে ভীষণ সুন্দর আর চোখ দুটো নীল। যেহেতু ও কানে শুনতে পায় না, তাই ওর বোধশক্তি প্রখর ও জোরালো।’

অ্যাকিলিস এরই মধ্যে রুশ ফুটবল ভক্তদের আস্থা অর্জন করেছে। এক খুদে ভক্ত জানান, ‘আমার মনে হয় ও পারবে। কারণ ও খুবই সৎ, মিষ্টি ও বিনয়ী। ও নিজস্ব মেজাজে চলে, যা আমাদের থেকে একদমই আলাদা।’

আরেক ভক্তের ভাষ্য, ‘অ্যাকিলিস এরই মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। ও এখন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর মতো সেলিব্রিটি।’

অ্যাকিলিস জাদুঘরের বেসমেন্টে নিজের সঙ্গীদের নিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। কিন্তু বিশ্বকাপের ‘বিশেষ দায়িত্ব’ পালনে সে এখন ‘ক্যাট রিপাবলিক’ নামের এক ক্যাফেতে আস্তানা গেঁড়েছে। আগামী এক মাস এটাই হবে তার ঠিকানা।

পল যেভাবে সাফল্যের সঙ্গে ২০১০ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে স্পেনকে বেছে নিয়েছিল, সেভাবে আর কেউ ধারাবাহিকতা দেখাতে পারেনি। ২০১৪ আসরে উট-হাতি-গিনিপিগরা ‘জ্যোতিষগিরি’ করলেও পলের ধারে কাছে কেউ আসতে পারেনি।

তবে রাশিয়ার মঞ্চে আটঘাট বেঁধেই নামছে অ্যাকিলিস। এই চতুষ্পদ প্রাণীর ‘দৈব-দূরদর্শিতা’ যে নতুন কিছু নয়! গেল বছর ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের সেমি ফাইনাল, ফাইনালসহ বেশ কটি ম্যাচের সঠিক ভবিষ্যদ্বাণী করে ‘ওয়ার্ম-আপ’ সেরে ফেলেছে সে। এবার বিশ্বকাপে কতটা সফল হতে পারে ‘জ্যোতিষী অ্যাকিলিস’, এখন সেটাই দেখার অপেক্ষা।

সূত্র : এএফপি, রয়টার্স

"