থানায় এসআইকে মারধর : আ’লীগ নেতা আটক

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৮, ০০:০০

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

মাদকসেবী তিন আসামিকে না ছাড়ায় থানায় ঢুকে পুলিশ কর্মকর্তাকে পিটিয়ে কাপড় ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে এক আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় গৌরীপুর থানার ডিউটি অফিসারের কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার শিকার হলেন থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. হাসানুজ্জামান। ওই আওয়ামী লীগ নেতার নাম রুকনুজ্জামান পল্লব। তিনি ২নং গৌরীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে পল্লবের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে ময়মনসিংহ সিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহত এএসআই হাসানুজ্জামানকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গৌরীপুর থানার এএসআই হাসানুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম গত শুক্রবার রাতে গৌরীপুর-শ্যমগঞ্জ সড়কে টহল দিচ্ছিল। এ সময় সড়কের গাভী শিমুল এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দা মনোয়ারুল সিফাত, হাবিবুর রহমান ও আবু হানিফ বসে মাদক সেবন করছিলেন। এ সময় পুলিশ তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এদিকে, শনিবার সকালে মাদক সেবনের অভিযোগে মামলা দিয়ে আটক তিন আসামিকে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল। ওই সময় পল্লব তাদের ছাড়িয়ে নিতে থানায় গিয়ে এএসআই হাসানুজ্জামানের কাছে তদবির করেন। কিন্তু হাসানুজ্জামান তদবির না শুনলে পল্লব তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে পুলিশের ইউনিফর্ম ছিঁড়ে ফেলে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। এ সময় থানার অন্য পুলিশ সদস্যরা এসে হাসানুজ্জামানকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায় এবং পল্লবকে আটক করে।

এএসআই হাসানুজ্জামান বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা পল্লব থানায় এসে আমাকে বলে আপনি আসামি ধরার কে, আপনি আমার এলাকার ছেলেদের ধরে থানায় নিয়ে এসেছেন কেন, দ্রুত ওদেরকে ছেড়ে দিন। কিন্তু আমি ছেড়ে দিতে অস্বীকৃতি জানালে তিনি থানার ভেতরেই আমার ওপর চড়াও হন। আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এমনকি ইউনফির্মও ছিঁড়ে ফেলেন।

গৌরীপুর থানার ওসি দেলোয়ার আহম্মদ বলেন, পুলিশকে মারধরের ঘটনায় পল্লবের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে। আটক তিন যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

"