কেএসআরএম মালিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদ

প্রকাশ : ১৮ মে ২০১৮, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

ইফতারসামগ্রী বিতরণকালে হতাহতের ঘটনায় শিল্প গ্রুপ কেএসআরএমের মালিক মো. শাহজাহানের বিরুদ্ধে হত্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে সাতকানিয়াবাসী। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে করা এই মানববন্ধনে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ অংশ নেয়। বেলা ১১টা থেকে দুই ঘণ্টার এই মানববন্ধন উত্তর ঢেমশা কার্তিকের দোকান এলাকা থেকে গাটিয়াডাঙ্গা হাঙ্গরমুখ এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত হয়।

সড়কের দুই পাশে নানা বয়স ও পেশার মানুষ সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়িয়ে কেএসআরএমের মালিক মো. শাহজাহানের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদ জানায়। প্রাপ্তবয়স্কদের পাশাপাশি স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অনেক শিক্ষার্থীও এতে অংশ নেয়। মানববন্ধন শুরুর এক ঘণ্টা পর বেলা ১২টা থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিপাত তাদের নড়াতে পারেনি চুল পরিমাণ।

এ সময় ‘শাহজাহান সাহেবের বিরুদ্ধে মামলা কেন, প্রশাসন জবাব চাই’, ‘শাহজাহান সাহেবের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার কর’, ‘শাহজাহান সাহেবের বিরুদ্ধে মামলা চাই না’, ‘শাহজাহান সাহেবের সম্মান ক্ষুণœ হতে দেব না’, ‘দুর্ঘটনায় হত্যা মামলা, মানি না মানব না।’, ‘মামলা চাই না, ত্রাণ চাই’, ‘এলাকাবাসীর সর্বনাশ করবেন না’সহ নানা সেøাগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড বহন করতে দেখা যায়। কেউ কেউ মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন ‘কাফনের কাপড়’ পরে; আর কেউ ‘কাফনের কাপড়’ পরে মোটরসাইকেলে মানববন্ধনের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটেছেন। এদের মধ্যে সালাউদ্দিন নামের একজনের কাছে পোশাকের এই অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। তখন তিনি বলেন, ‘আমরা ওনার (শাহজাহান) জন্য মরতেও রাজি। এ জন্য কাফনের কাপড় পরে মাবনববন্ধনে অংশ নিয়েছি।’

এদিকে, ইফতার সামগ্রী বিতরণকালে ৯ নারী-শিশুর মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসনের তদন্ত দল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নে গাটিয়াডাঙ্গা গ্রামের হাঙ্গরমুখ এলাকায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তদন্ত দলে ছিলেন- অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাশহুদুল কবির, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. হুমায়ুন কবির, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সাতকানিয়া সার্কেল) হাসানুজ্জামান মোল্লা, সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোবারক হোসেন ও নলুয়া ইউপি চেয়ারম্যান তসলিমা আক্তার।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তদন্তে টিমের প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাশহুদুল কবির সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি তদন্তের অংশ হিসেবে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে। তখন এ বিষয়ে বিস্তারিত জেলা প্রশাসক মহোদয় জানাবেন। এখনই কিছু বলা ঠিক হবে না।’

গত সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় গাটিয়াডাঙ্গা হাঙ্গরমুখ এলাকার কাদেরিয়া মুঈনুল উলুম দাখিল মাদরাসা প্রাঙ্গণে ইফতার সামগ্রী বিতরণকালে ভিড়ের চাপে হতাহতের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ৯টি মরদেহ উদ্ধার করে, আহত হন অন্তত ২০জন। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার কেএসআরএম ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. শাহজাহানকে প্রধান আসামি করে নিহত হাসিনা আক্তারের স্বামী মোহাম্মদ ইসলাম সাতকানিয়া থানায় মামলা করেন।

"