দুর্যোগ মোকাবিলায় সমন্বয় বাড়াতে হবে : অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ : ১৭ মে ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

দুর্যোগের পূর্বাপর সময়ে বিভিন্ন অংশীদের মধ্যে সমন্বয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বিভিন্ন অংশীদারের মধ্যে সমন্বয় বৃদ্ধি করা গেলে প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের সহায়-সম্পদ রক্ষা আরো সহজ হবে। গতকাল বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিবন্ধিতা ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনাবিষয়ক দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক সম্মেলনের ‘গুড প্রাকটিসেস অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ইনক্লুসিভ ডিজাস্টার রিস্ক রিডাকশন অ্যান্ড হিউম্যানিট্যারিয়ান অ্যাকশনস’ শীর্ষক প্লেনারি সেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

সেশনে সভাপতিত্ব করেন অর্থ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী। এই সেশনে তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়।

‘মডেলস অব সাইকো-সোশ্যাল সাপোর্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অব ট্রমা ডিউরিং হিউম্যানিট্যারিয়ান ক্রাইসিস’ শীর্ষক সেশনে সায়মা হোসেন বলেন, দুর্যোগকালে স্বাভাবিকভাবেই মানুষ ভয়, আতঙ্ক ও দুর্দশাগ্রস্ত থাকে। সেখানে প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর অবস্থা আরও খারাপ থাকে। সে অবস্থায় তাদের পরম মমতা প্রয়োজন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা নাগরিকরা এক ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। তাদের এখন পরিপূর্ণ মানসিক সহায়তা প্রয়োজন। রোহিঙ্গা নাগরিকসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শরণার্থী নারী ও শিশুদের মানসিক সহায়তা দিতে কাজ করার আহ্বান জানান সায়মা। এ সেশনে সভাপতিত্ব করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ্ কামাল।

‘উইমেন, এল্ডারলি, ইয়ুথ অ্যান্ড চিলড্রেন উইথ ডিসঅ্যাবিলিট ইন ডিআরএম’ শীর্ষক সেশনে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, দুর্যোগ যে কোনো মানুষের জন্য স্বাভাবিকভাবেই কঠিন সময়। সেখানে প্রতিবন্ধীরা দুর্যোগে আরও বিপদাপন্নতার মধ্যে থাকে। তাদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়াতে হবে।’

 

অনুষ্ঠানে তথ্য অধিদপ্তরের প্রধান তথ্য অফিসার কামরুন নাহার, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক হারুন উর রশিদ বক্তব্য দেন। এর মধ্যে ‘লিভিং নো ওয়ান বিহাইন্ড ডিজাস্টার রিস্ক রিডাকশন অ্যান্ড সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস’ শীর্ষক প্লেনারি সেশনে সভাপতিত্ব করেন পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. জিয়াউল হক। দুর্যোগের আগেই এর প্রস্তুতিতে সঠিক পরিকল্পনার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

"