কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন না হলে আজ থেকে ধর্মঘট

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৮, ০০:০০

ঢাবি প্রতিনিধি

বিকালের মধ্যে কোটা ব্যবস্থা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি না হলে সোমবার থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। একই দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যাল ক্যাম্পাস ও চট্টগ্রামে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল রোববার সকালে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এ ঘোষণা দেন সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নূর।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার ৩২ দিন পার হলেও প্রজ্ঞাপন জারি হয়নি। আমরা আর অপেক্ষা করতে চাই না। আজ বিকাল ৫টার মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি না করা হলে কাল থেকে সারা দেশের সব কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মঘট চলবে। অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করা হবে।’ তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রজ্ঞাপন জারির কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১১ এপ্রিল জাতীয় সংসদে বলেন, ‘বারবার এ আন্দোলন ঝামেলা মেটানোর জন্য কোটা পদ্ধতি বাতিল; পরিষ্কার কথা; আমি এটাই মনে করি, সেটা হলো বাতিল।’

কোটা নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি করার কথাও ওই দিন বলেন সরকারপ্রধান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি করতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাব গত ১০ মে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছে। তবে রোববার দুপুর ১টা পর্যন্ত সেই কমিটি হয়নি।

নুরুল হক নূর বলেন, ‘সরকার যখন ডেকেছে, আমরা সাড়া দিয়েছি। ৭ মের মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারির কথা ছিল, কিন্তু এমনটা না হওয়ায় ছাত্ররা বিক্ষুব্ধ হয়েছে। বাংলার ছাত্রসমাজ তাদের অধিকার আদায়ে আর ছাড় দেবে না। যদি দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি না করা হয়, তাহলে কঠোর আন্দোলনে যাব।’

বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন ও যুগ্ম আহ্বায়ক মুহম্মদ রাশেদ খান বক্তব্য দেন। এর আগে একটি বিক্ষোভ মিছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে শুরু হয়ে মধুর ক্যান্টিন, লেকচার থিয়েটার ভবন, সূর্যসেন হল, মুহসীন হল, নীলক্ষেত মোড় ঘুরে ভিসি চত্বর, ফুলার রোড, শহীদ মিনার, দোয়েল চত্বর হয়ে শাহবাগ গিয়ে শেষ হয়।

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারী ‘ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ কোটার পরিমাণ ১০ শতাংশে কমিয়ে আনার দাবি তুলেছিল। কোটায় প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধাতালিকা থেকে তা পূরণের দাবিও জানিয়েছিল তারা।

চট্টগ্রামে বিক্ষোভ সমাবেশ

চট্টগ্রাম ব্যুরো : সরকারি চাকরিতে বিদ্যমান কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি ও কেন্দ্রীয় নেতার বাড়িতে হামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম নগরের ষোলশহর রেলস্টেশনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী রোববার সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত নগরীর ষোলশহর রেল স্টেশনের প্লাটফর্মে অবস্থান নেন বিক্ষোভকারীরা। এ সময় ষোলশহর রেল স্টেশনে পুলিশ মোতায়েন ছিল। আন্দোলনের মধ্যেও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়গামী সব শাটল ট্রেনের চলাচল স্বাভাবিক ছিল।

জাবিতে বিক্ষোভ, আন্দোলনকারীর ওপর মারধরের অভিযোগ

জাবি প্রতিনিধি : কোটা বাতিলের ঘোষণার প্রজ্ঞাপন প্রকাশের দাবিতে ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা। রোববার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরির সামনে থেকে ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি ইউনিট’র ব্যানারে মিছিলটি শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনারে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। এতে বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ২০০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

এদিকে, ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) ইউনিটের এক নেতাকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের কতিপয় কর্মীর বিরুদ্ধে। মারধরের শিকার খালিদ মাহমুদ তন্ময় সংগঠনটির সদস্য সচিব। রোববার তিনি নির্যাতনের বিচার চেয়ে মারধরকারী ছাত্রলীগ কর্মী সাগর সিদ্দিকীর নাম উল্লেখ করে আরো চার-পাঁচজনের বিরুদ্ধে মীর মশাররফ হোসেন হলের প্রাধ্যক্ষকে একটি অভিযোগপত্র দিয়েছেন। এছাড়া প্রক্টরের কাছেও মৌখিক অভিযোগ জানিয়েছেন তন্ময়। অভিযুক্ত ও ভুক্তভোগী সবাই ওই হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

"