ফিলিপিন্সের প্রধান বিচারপতিকে অপসারণের সিদ্ধান্ত

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

ফিলিপিন্সের প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি মারিয়া লর্দেস সেরেনোকে ভোটের মাধ্যমে অপসারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট, প্রসিডেন্ট রদরিগো দুর্তেতে যাকে ‘শত্রু’ বলেছিলেন। সরকারের কয়েকটি বিতর্কিত প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেওয়ায় দুর্তেতের বিরাগভাজন হন সেরেনো। এদিকে, সরকার ক্ষমতার অপব্যবহার করে

সেরেনোকে অপরাসণের চেষ্টা

করেছে এবং দেশটির সর্বোচ্চ আদালত দুর্তেতের ‘হাতের পুতুলে’ পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির বিরোধী নেতারা। এদিকে, এই বিচারপতির মুখপাত্র জানিয়েছে এই অপসারণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে।

নিয়োগ প্রক্রিয়া লঙ্ঘন করে সেরেনোকে প্রধান বিচারপতি করা হয়েছে অভিযোগ তুলে তা বাতিলের দাবিতে সরকারের করা পিটিশনে গতকাল শুক্রবার ভোট হয় এবং ৮-৬ ভোটের ব্যবধানে সেরেনোকে অপরাণের সিদ্ধান্ত হয়।

ভোটের পর সিদ্ধান্ত জানাতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র বলেন, ‘বেআইনিভাবে পদ দখল করে কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে মারিয়া লর্দেস সেরেনোকে প্রধান বিচারপতির কার্যালয়ে থাকার অযোগ্য ঘোষণা করা হচ্ছে।’

বিচারবিভাগ ও বার কাউন্সিলকে শূন্য পদে দ্রুত নতুন বিচারপতি নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার আদেশও দেওয়া হয়েছে। সেরেনোর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের অন্য সদস্যদের বিরুদ্ধে ‘কুৎসা রটনা ও তাদের ক্ষতি করার চেষ্টাসহ’ কয়েকটি অভিযোগ এনে আগামী ১০ দিনের মধ্যে এর জবাব দিতে বলা হয়েছে। কোনো ধরনের অন্যায় করেননি দাবি করে অপসারণের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানিয়েছেন সেরেনোর মুখপাত্র। টেলিভিশনে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘এটা একটি দুঃখের দিন।’ শুক্রবার ভোটের আগে সেরেনোর শতাধিক সমর্থক সুপ্রিম কোর্টের বাইরে বিক্ষোভ করেন। সেরেনো বিরোধীরাও এদিন সেখানে জড় হয়েছিলেন।

 

"