সড়ক দুর্ঘটনায় মামা ভাগ্নেসহ নিহত ৫

প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে সড়ক দুর্ঘটনায় মামা-ভাগ্নের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। মিরসরাইয়ে একটি বালুবাহী ও সিএনজি অটোরিকশার সংর্ঘষে দুই শিশু নিহত হয়েছে। এ ছাড়া বরগুনার আমতলিতে গাড়ির ধাক্কায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে রাস্তা পার হওয়ার সময় মোটরসাইকেলের সঙ্গে বাইসাইকেলের সংঘর্ষে মামা-ভাগ্নের মৃত্যু হয়। আহত হয়েছেন মোটরসাইকেলের এক আরোহী। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার গোমজানী এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- দেলদুয়ার উপজেলার কুমুরিয়া গ্রামের সেলিমের ছেলে মো. রাব্বি এবং টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বরুহা গ্রামের তাজু বয়াতীর ছেলে আরফান। নিহতরা সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে বলে জানা গেছে।

দেলদুয়ার থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, বিকেলে উপজেলার গোমজানী এলাকায় সাইকেলযোগে রাস্তা পাড় হচ্ছিলেন রাব্বি। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে আসা রাব্বির মামা আরফান সাইকেলটি চাপা দেয়। এতে তিনজন আহত হন। তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মামা-ভাগ্নে দুইজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের দুই শিশু সন্তান নিহত হয়েছে। নিহতরা হচ্ছে উপজেলার কাটাছড়া ইউনিয়নের বাড়িয়াখালী গ্রামের কাজী নজরুল ইসলাম মতিনের সন্তান মো. ঈশান (১১) ও মো. জিসান (৫)। গতকাল শুক্রবার করেরহাট সড়কের আজমপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি বালুবাহী ট্রাক ও সিএনজি অটোরিকশার সংর্ঘষে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় আহতরা হলেন কাজি নজরুল ইসলাম মতিন, আকলিমা বেগম মুক্তা, মেহেরুননেসা সুরমা। আহতদের অবস্থার অবনতি হলে তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। দুর্ঘটনার পর স্থানীয় উত্তেজিত জনতা ট্রাকটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিসের একটি দল দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

জোরারগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক আজিজুল হক বলেন, নিহত ও আহতরা সবাই একই পরিবারের সদস্য। তারা একটি সিএনজি অটোরিকশায় করে হিঙ্গুলী ইউনিয়নের আজমপুর গ্রামে আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছিল। এ সময় বারইয়ারহাটগামী একটি বালুর ট্রাক বেপরোয়া গতিতে আরেকটি গাড়িকে অতিক্রম করার সময় যাত্রীবাহী ওই সিএনজি অটোরিকশাকে রাস্তার পার্শ¦বর্তী মাঠে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই এক শিশু নিহত হয় এবং চমেকে নেওয়ার পর অন্য শিশুটিকেও মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে।

বরগুনা : পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমতলীর (বরগুনা) আমড়াগাছিয়া খানকার সামনে গাড়ি চাপায় নুর মোহাম্মদ (৩৫) নামের মানসিক ভারসাম্যহীন এক যুবক নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার স্থানীয়রা লাশ দেখে থানায় খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। নুর মোহাম্মদ খোরশেদ আলমের ছেলে।

আমতলী থানার ওসি মো. শহিদ উল্যাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরিবারের ইচ্ছায় লাশের ময়নাতদন্ত হয়নি।

 

"