গ্যাস চুরি ঠেকাতে ব্যাপক অভিযান

সংযোগ বিচ্ছিন্ন : জরিমানা

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার ও চুরি ঠেকাতে বিশেষ পরিদর্শন এবং সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে। পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অবৈধ লাইন অপসারণ ও সংযোগ বিচ্ছিন্নের অভিযানও অব্যাহত রয়েছে। ১৮ মাসে ৭টি শিল্প, ২১টি বাণিজ্যিক, ১টি ক্যাপটিভ, ৬৯ কিলোমিটার অবৈধ গ্যাস পাইপলাইন, ২৬,৫৩৩টি অবৈধ আবাসিক চুলা এবং গ্যাসবিল বকেয়ার কারণে ১,২৫৮টি বৈধ চুলা, ১২টি শিল্প, ৯টি বাণিজ্যিক, ১টি সিএনজি ও ১টি ক্যাপটিভের গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ সময় দায়ীদের জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযানসমূহের মধ্যে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট-এর নেতৃত্বে অবৈধভাবে রাইজার উত্তোলন করে গ্যাস সংযোগ গ্রহণ করায় ঢাকার কদমতলী এলাকায় গত ৫ মার্চ একটি বেকারি ও একটি মশার কয়েল কারখানার গ্যাস সংযোগ স্থায়ীভাবে বিচ্ছিন্ন করা হয়। ওই বেকারি কারখানার নিকট হতে এক লাখ টাকা এবং মশার কয়েল কারখানার নিকট হতে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। তাছাড়া, অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার করায় গাজীপুর এলাকায় গত ১৪ মার্চ মেসার্স সামী টেক্সটাইল লি. ও ১টি নামবিহীন হোটেল, কামরাঙ্গীরচর এলাকায় গত ২৭ ও ২৯ মার্চ রবিন ফুড প্রোডাক্টস ও প্রিয় কনফেকশনারির গ্যাস সংযোগ স্থায়ীভাবে বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ সময় মেসার্স সামী টেক্সটাইল লি. ও প্রিয় কনফেকশনারি প্রতিষ্ঠানদ্বয়কে এক লাখ টাকা করে, রবিন ফুড প্রোডাক্টাসকে ৫০ হাজার টাকা ও ১টি নামবিহীন হোটেলকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বিভাগীয় ভিজিল্যান্স টিম অনুমোদন অতিরিক্ত লোড ব্যবহার করায় গত ২১ মার্চ গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় মেসার্স ইএইচ ফেব্রিক্স লি., কোনাবাড়ী এলাকায় মেসার্স হর্নবিল অ্যাপারেলস লি. (ক্যাপটিভ পাওয়ার), গত ২৮ মার্চ সোনারগাঁও এলাকায় মেসার্স অনন্ত ডেনিম টেক লি.-এর গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। অবৈধ স্থাপনায় ও অবৈধ বুস্টারে গ্যাস ব্যবহার করায় গত ৮ মার্চ গাজীপুর এলাকায় মেসার্স ইকো ওয়াশিং লি. ও মেসার্স নিশা অ্যাপারেলস লি., হাউস লাইনে বুস্টার ব্যবহার করায় গত ২১ মার্চ টঙ্গী এলাকায় মেসার্স সিমটেক্স লি. কম্প্রেসার ব্যবহার করায় ২৮ মার্চ জিঞ্জিরা এলাকায় মেসার্স ইসমাইল প্রিন্ট কৌটার ফ্যাক্টরির গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। তাছাড়া, অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহার করায় বন্দর এলাকায় গত ৮ মার্চ মেসার্স মায়ের দোয়া ভান্ডারি হোটেল, গত ১৪ মার্চ নিউ কোবরা কয়েল ফ্যাক্টরি, মোকতার হোটেল, খাজা হোটেল, গত ১৫ মার্চ ভান্ডারী হোটেল, সোনারগাঁও এলাকায় গত ১৪ মার্চ সবুজ পাতা রেস্টুরেন্ট ও মোহাম্মদিয়া হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট, গত ১৮ মার্চ হোসেন রেস্তোরাঁ, একবেলা রেস্তোরাঁ, মায়ের দোয়া মিষ্টান্ন ভান্ডার, তাহের হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট, বিসমিল্লাহ বেকারি, বটপাতা হোটেল ও আমীর হোসেন হোটেল, গত ২৯ মার্চ জেট এন্ড কে কোম্পানি ও এস এস কেমিক্যালের গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

বিভাগীয় টিম বকেয়া বিলের কারণে গত ১৩ মার্চ ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় জে. কে. ফুড প্রোডাক্ট, মানিকগঞ্জ এলাকায় গত ১৫ মার্চ মেসার্স সুলতান বেকারি, গত ২০ মার্চ মেসার্স আল-মোবারক হোটেল, গত ২৯ মার্চ মেসার্স দিলদার ফুড প্রোডাক্টস, সাভার এলাকায় গত ৭ মার্চ মেসার্স বিশ্বাস সিনথেটিক্স (হাউস লাইন বুস্টার স্থাপন), গত ১৪ মার্চ মেসার্স ফাহামি ইন্ডাস্ট্রিজ ও গত ১৮ মার্চ মেসার্স মিরাকল এক্সেসরিজ, মেসার্স আল মদিনা ট্যানারি, মেসার্স সমতা কমপ্লেক্স, মেসার্স আরব চিড়া মিল, মেসার্স হট ড্রেস লিমিটেড, গাজীপুর এলাকায় মেসার্স এ এম সি সুয়েটারস লি., গত ১৯ মার্চ কোনাবাড়ীর বিসিক এলাকায় মেসার্স আক্তার ক্যাপস, গত ১৪ মার্চ কালিয়াকৈরে রাজীব মিষ্টান্ন ভান্ডার, ফতুল্লা এলাকায় গত ৬ মার্চ মোল্লা পেপার প্রোডাক্টস, গত ১২ মার্চ ভাই ভাই রি-রোলিং মিল্স, গত ২০ মার্চ জাকির মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ ও গত ২৮ মার্চ বুশরা রেস্টুরেন্ট এন্ড মিনি চাইনিজ, গত ২১ মার্চ তেজগাঁও এলাকায় এ্যাপারেল এইড লি. ও শোভন ওয়াশিং প্লান্ট লি., গত ২৯ মার্চ জিঞ্জিরায় মেসার্স আসলাম লন্ড্রির গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। তাছাড়া, মানিকগঞ্জ এলাকায় গত ২৭ মার্চ মেসার্স জে এন্ড জে সিএনজি ও ক্যাপটিভ পাওয়ার-এর গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অভিযানকালে গত ৫, ৬, ৭, ৮, ১২, ১৩, ১৪, ২১, ২২ ও ২৭ মার্চ গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ২ ইঞ্চি ব্যাসের ১,০৬,৯৬৩ ফুট, গত ৮, ১১ ও ১৩ মার্চ সাভার এলাকায় বিভিন্ন ব্যাসের ৫৭,৪১৯ ফুট, গত ২৭ ও ২৯ মার্চ মোহাম্মদপুর, হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর এলাকায় ২ ইঞ্চি ও ৩ ইঞ্চি ব্যাসের ১৮,৬৪০ ফুট, গত ২৮ মার্চ মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া এলাকায় ২ ইঞ্চি ও ৩ ইঞ্চি ব্যাসের ১৩,১২৩ ফুট এবং কোম্পানির বিভাগীয় টিম গত ৯, ১০, ১৭, ২৪ ও ৩১ মার্চ টঙ্গীর বিভিন্ন এলাকায় ৩Ñ৪ ইঞ্চি, ১ ইঞ্চি ও ২ ইঞ্চি ব্যাসের ৩,৮৮২ ফুট, গত ৬, ১৩ ও ১৯ মার্চ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় বিভিন্ন ব্যাসের ১,৪১০ ফুট, গত ১৪ মার্চ সোনারগাঁও এলাকায় ১ ইঞ্চি ও ২ ইঞ্চি ব্যাসের ৬,৫৬২ ফুট, গত ২১ মার্চ তুরাগ থানা, উত্তরখান ও টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ২ ইঞ্চি ব্যাসের ২,৩২৮ ফুট, গত ২৮ মার্চ কুনাপাড়া ও শান্তিবাগে ১ ইঞ্চি ব্যাসের ১০০ ফুট, নারায়ণগঞ্জ এলাকায় বিভিন্ন ব্যাসের ১৬,৪০৫ ফুট, গত ৩০ মার্চ চন্দ্রা এলাকায় ১ ইঞ্চি ব্যাসের ২,২০ ফুটসহ সর্বমোট ২,২৭,০৫২ ফুট অর্থাৎ ৬৯.২০ কি.মি. অবৈধভাবে স্থাপিত গ্যাস পাইপলাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন/অপসারণ করা হয়। এর ফলে প্রায় ২৬,৫৩৩টি চুলার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গত মার্চ মাসে ৩৪ জন অবৈধ গ্যাস ব্যবহারকারীদের সর্বমোট ৪ লাখ ৪২.৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"