যুদ্ধাপরাধীর বিচার

পাঁচজনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল

প্রকাশ : ১১ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

আদালত প্রতিবেদক

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে যশোরের মনিরামপুরের সিদ্দিকুর রহমান গাজী ওরফে সিদ্দিকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা থেকে গতকাল মঙ্গলবার প্রসিকিউশন শাখায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. আবদুর রাজ্জাক খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সকালে তদন্ত সংস্থার ধানমন্ডি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তদন্ত প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়। এ সময় তদন্ত সংস্থার প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল হান্নান খান, জ্যেষ্ঠ সমন্বয়ক সানাউল হক উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল হান্নান খান জানান, মুক্তিযুদ্ধের সময় সিদ্দিকুর রহমান গাজীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, আটকসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ছয় ধরনের অভিযোগে তদন্ত শেষ হয়েছে। অপর আসামিরা পলাতক। তিনি বলেন, এ মামলায় আসামি ছিলেন ১৩ জন। এর মধ্যে গ্রেফতার আছেন একজন। পলাতক চারজন। আর মারা গেছেন আটজন। গ্রেফতারের স্বার্থে আটক আসামি সিদ্দিক ছাড়া পলাতক চার আসামির পরিচয় প্রকাশ করা

যাচ্ছে না। আসামিরা মুক্তিযুদ্ধের সময় মনিরামপুর থানার ভোজগাতী, দিকদানা, নোয়ালী, দুর্বাডাঙ্গা, সরষকাটি গ্রাম এবং চিনাটোলা বাজারের পূর্বপাশে হরিহর নদের ওপর স্থাপিত ব্রিজে অপরাধ সংঘটিত করেন। তাদের বিরুদ্ধে ১১ জনকে হত্যা ও চারজনকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, মনিরামপুর থানার হরেরগাতি গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান গাজী। একাত্তরে মনিরামপুর থানার শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় মুসলিম লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে এখন বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত আছেন। এ মামলায় ৩৩ জনকে সাক্ষী রাখা হয়েছে। আসামি সিদ্দিকুর রহমান গাজী কারাগারে আছেন।

"