বিমানে ভয়ই সত্য হলো বিলকিসের

প্রকাশ : ১৫ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

এস এইচ এম তরিকুল, রাজশাহী

বিমানে ভয় ছিল বিলকিসের। সেই ভয়ের কারণে কানাডা প্রবাসী সন্তানের কাছেও যাননি, সে ভয়ই সত্যি হয়েছে বিলকিসের। বিলকিস আরা নাটোরের গোপালপুর কলেজের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষিকা। নেপালের কাঠমান্ডু বিমান দুর্ঘটনায় রাজশাহীর তিন দম্পতির মধ্যে নিহত হয়েছেন পাঁচজন, সেই তালিকায় আছেন বিলকিস। তবে এ দম্পতির মধ্যে ইমরানা কবির হাসি বেঁচে থাকলেও তিনি কাঠমান্ডু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জীবন-মরণ সন্ধিক্ষণে আছেন। হাসি রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষক। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের ফেসবুক আইডিতে প্রকাশিত হতাহত বাংলাদেশিদের তালিকা থেকে বিষয়টি নিণ্ডিত হওয়া গেছে। তালিকার ৩২ বাংলাদেশির মধ্যে ইমরানা কবির হাসির নাম রয়েছে ১৪ নম্বরে। সবুজ রঙে নাম লিখে জানানো হয়েছে তিনি জীবিত আছেন। তবে হাসির স্বামী রকিবুল হাসানের নাম কালো রঙে লেখা থাকায় তিনি বেঁচে নেই বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

জানা গেছে, প্রকৌশলী রকিবুলের গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া গ্রামে। আর হাসির বাড়ি টাঙ্গাইলে। রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ থেকে পাস করে সেখানেই শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন হাসি। ভাড়া থাকতেন রাজশাহী নগরীর মুন্নাফের মোড় এলাকায়। আর তার স্বামী রকিবুল ঢাকায় একটি বেসরকারি সফটওয়্যার কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

এই দুর্ঘটনায় রাজশাহীর নিহত আরো দুই দম্পতি হলেন নগরীর শিরোইল এলাকার বাসিন্দা হাসান ইমাম ও তার স্ত্রী নাহার বিলকিস বানু এবং উপশহর এক নম্বর সেক্টরের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী আক্তারা বেগম। নিহত নাহার বিলকিস বানু রাজশাহীর বরেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ আলমগীর মালেকের বোন। তিনি একজন অবসরপ্রাপ্ত কলেজ শিক্ষক ছিলেন। আর তার স্বামী হাসান ইমাম ছিলেন একজন অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব।

অন্যদিকে নজরুল ইসলাম ছিলেন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা। তার স্ত্রী আক্তারা বেগম ছিলেন রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষক। দুইজনই সম্প্রতি এলপিআরে গেছেন। অবসর গ্রহণের আগে তারা প্রথমবারের মতো বিদেশে বেড়াতে যাচ্ছিলেন।

এদিকে, নিহত হাসান ইমাম সর্বশেষ ভূমি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ছিলেন। এর আগে তিনি শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক ছিলেন। তিন বছর আগে তিনি অবসরে যান। আর তার স্ত্রী বিলকিস আরা নাটোরের গোপালপুর কলেজের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষিকা ছিলেন। নিহত হাসান ইমাম, তার স্ত্রী বিলকিস বানু এবং নজরুল ইসলাম ও তার স্ত্রী আক্তারা বেগম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে একই বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কারণে তারা চারজন একসঙ্গেই নেপাল ভ্রমণে যাচ্ছিলেন। এখন সবার পরিবারেই চলছে শোকের ছায়া।

নিহত বিলকিস আরার ভাই রাজশাহী বরেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ আলমগীর মালেক জানান, ৯ ভাইবোনদের মধ্যে পঞ্চম বিলকিস আরা। বিলকিস উড়োজাহাজে চড়তে ভয় পেতেন। এ কারণে তিনি কোনো দিনই বিমানে ওঠেননি। কানাডা প্রবাসী তার দুই ছেলে একাধিকবার নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন।

নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় রাজশাহীর আরো এক নারী নিহত হয়েছেন বলে নিণ্ডিত হওয়া গেছে। তার নাম মিতু ইসলাম। তিনি রাজশাহী নগরীর নওদাপাড়া এলাকার কিবরিয়ার মেয়ে। মিতু নিউইয়র্ক প্রবাসী ছিলেন। সেখান থেকে কয়েক দিন আগে দেশে ফিরেছিলেন। এরপর মিতু গত ১২ মার্চ নেপাল ভ্রমণ করতে যান। কিন্তু ইউএস-বাংলার সেই দুর্ঘটনাকবলিত বিমানের যাত্রী ছিলেন তিনি। ফেসবুকের মাধ্যমে খবরটি নিণ্ডিত করেছেন তার বন্ধু ইতালি প্রবাসী জাকির হোসেন। এ নিয়ে সব মিলিয়ে রাজশাহীর ছয়জন বাসিন্দা নেপালের ওই বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হলেন। যাদের মধ্যে তিনজনই নারী।

 

"