ব্রেকিং নিউজ

দুই উপনির্বাচন

নাসিরনগরে আ.লীগ সুন্দরগঞ্জে জাপা

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর) উপনির্বাচনে বেসরকারি ফলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বি এম ফরহাত হোসেন সংগ্রাম জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে তিনি ৪৮ হাজারেরও বেশি ভোট পেয়ে জয়ী হন। গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের দ্বিতীয় উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আফরুজা বারী পেয়েছেন ৬৮ হাজার ৯১৩ ভোট।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ ফল ঘোষণা করা হয়। এর আগে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে একটানা চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, নাসিরনগর উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বি এম ফরহাত হোসেন সংগ্রাম নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ৪৮ হাজারেরও বেশি ভোট পেয়ে জয়ী হন। সংগ্রাম পেয়েছেন ৮৩ হাজার ৩১৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজোয়ান আহমেদ পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৯০১ ভোট। নির্বাচনে অংশ নেওয়া ইসলামী ঐক্যজোট প্রার্থী একে এম আশরাফুল হক পেয়েছেন ৫৬৮ ভোট। জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ আহমেদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

এদিকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নৌকার প্রার্থী বিজয়ের খবরে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নাসিরনগর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বিজয় মিছিল করছে। তবে এখন পর্যন্ত কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, সুন্দরগঞ্জ আসনের দ্বিতীয় উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী ৭৮ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আফরুজা বারী পেয়েছেন ৬৮ হাজার ৯১৩ ভোট। এর আগে গত বছরের ২২ মার্চ প্রথমবার এই আসনের উপনির্বাচনে ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা আহমেদের কাছে ৩০ হাজার ৬৯ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিলেন। আর ভোট পড়েছিল ৪৯ দশমিক ৯৭ ভাগ।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে একটানা চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই উপ-নির্বাচনে ১০৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করা হয়। সুন্দরগঞ্জ উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়নে ভোটার রয়েছেন তিন লাখ ৩৮ হাজার ৫৫৬ জন। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনজুরুল ইসলাম লিটন দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হলে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনটি শূন্য হয়। পরে ২০১৭ সালের ২২ মার্চ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে জয়লাভ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদ। তিনিও সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে এক মাস ঢাকায় চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর মারা যান। ফলে আসনটি আবারও শূন্য হয়।

 

"